সৌভাগ্যের সাত, শিরোপায় হাত

আলোকিত সকাল ডেস্ক

আয়ারল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ত্রিদেশীয় সিরিজে চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় এখন আনন্দে ভাসছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। আগের ৬ বার না পারলেও সপ্তমবারে এসে বৈশ্বিক টুর্নামেন্টে ট্রফি জয়ের সৌভাগ্য অর্জন করেছে টাইগাররা, তাই বলাই যায় এবারের ফাইনালটি ছিল বাংলাদেশের জন্য লাকি সেভেন।

তবে সৌভাগ্যশালী সাত সংখ্যাটি শুধুমাত্র সপ্তমবার ফাইনালে এসে জয়ে মালা পরার জন্যই নয়, আরও বেশকিছু কারণে টাইগারদের জন্য কাকতালীয়ভাবে আলাদা এক মাহাত্ত নিয়ে ধরা দিয়েছে। এবার একনজরে দেখে নিন কীভাবে লাকি সেভেনে পরিপূর্ণ বাংলাদেশের শিরোপা জয়-

# মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ যখন বাউন্ডারি মেরে বাংলাদেশের শিরোপা নিশ্চিত করেন, তখনো বাংলাদেশের ইনিংস শেষ হতে ৭ বল বাকি ছিল!

# ওয়ানডেতে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের মধ্যে দ্রুততম ফিফটির রেকর্ড এখন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের। ২৪ বলে ২ চার ও ৫ ছক্কায় ৫২ রান করা মোসাদ্দেক অপরাজিত থেকেই বিজয় উল্লাস করতে করতে মাঠ ছাড়েন। কাকতালীয় হলেও সত্যি তিনি ক্রিজে নেমেছিলেন সাত নম্বর ব্যাটসম্যান হিসেবে।

# মোসাদ্দেক তার দুর্দান্ত ইনিংস খেলার পথে ২ চার ও ৫টি ছক্কা হাঁকান। অর্থাৎ বাউন্ডারি ও ওভার বাউন্ডারি মিলিয়ে তার স্কোরিং শটের সংখ্যা ৭।

# কাকতালীয় ঘটনার এখানেই শেষ নয়। মোসাদ্দেকের খেলা ম্যাচ সেরা ইনিংসটি ছিল ৫২ রানের। ৫২ সংখ্যাটি আলাদা করলে যোগফল দাঁড়ায় (৫+২)=৭।

# ফাইনাল ম্যাচটি ছিল ত্রিদেশীয় সিরিজের সপ্তম ম্যাচ। লীগ পর্বে প্রতিটি দল একে অন্যের সঙ্গে দুইবার করে মুখোমুখি হয়। শুধুমাত্র বাংলাদেশ ও আয়ারল্যান্ডের একটি ম্যাচ বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হয়।

আস/এসআইসু

Facebook Comments Box