সেতুর অভাবে দুর্ভোগে গ্রামবাসী

আলোকিত সকাল ডেস্ক

একটি সেতুর জন্য হাজারও গ্রামবাসীর দুর্ভোগ প্রায় এক দশক হতে। পঞ্চগড়ের আটোয়ারী উপজেলার রাধানগড় ইউনিয়নের একটি সেতুর জন্য দুর্ভোগের শেষ নেই কয়েকটি গ্রামের প্রায় দশ হাজার মানুষের। দীর্ঘদিন থেকে সেতুর দাবি তুললেও কোন কাজ হয়নি বলে অভিযোগ করেছে ঐ এলাকাবাসী। দক্ষিণ দূর্গাপুর, ডুংডুংগি, চা-পাতি, রবীন মার্কেট রানীগঞ্জ, চৌমুহনি গ্রামের মানুষের পারাপারের জন্য বর্তমানে একটি বাঁশের সাকোই একমাত্র ভরসা। বাঁশের এই সাকোটিও কয়েক গ্রামের মানুষ চাঁদা তুলে নিজেদের উদ্যোগে নির্মাণ করেছে। এলাকাবাসীরা জানায়, জেলা শহর, বিভিন্ন উপজেলাসহ হাটবাজারের সাথে যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম এই সাকো। সাকোর দুই পাশে রয়েছে একটি হাইস্কুল, দুইটি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং একটি মাদ্রাসা। এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কয়েক হাজার শিক্ষার্থী লেখাপড়া করছে। শিক্ষার্থীদের চলা ফেরার একমাত্র মাধ্যম এই সাকোটি।

বর্ষাকালে পানি বেশি হলে চলাফেরায় ভয় পায় শিক্ষার্থীরা। বাঁশ দিয়ে নির্মিত হওয়ায় যে কোন সময় দুর্ঘটনারও আশংকা রয়েছে। শিক্ষক শিক্ষার্থীরা সময় মতো প্রতিষ্ঠানে পৌছাতে পারেনা। অন্যদিকে হঠাৎ কোন রোগে আক্রান্ত রোগীদের তাৎক্ষণিক হাসপাতালে পৌছানোর কোন উপায় নেই এই এলাকাবাসীর।

এলাকার ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন সেতুর অভাবে তারা জিনিস পত্রের সঠিক মূল্য পাচ্ছেন না। কারণ সময় মতো হাট বাজারে মালামাল পৌছাতে পারেনা তারা। সেতুর অভাবে এই এলাকায় ট্রাক,বাস এবং অন্যান্য যানবাহন চলাচল করছে না। এই অবস্থায় এলাকাবাসীর দাবি দ্রুত একটা ব্রীজ নির্মাণের পদক্ষেপ নেবে সরকার।

দক্ষিণ দূর্গাপুর গ্রামের নরেশ চন্দ্র বর্মন (৯৮) জানান, ‘হামরা গাঁও গ্রামের মানুষ। ম্ইু কতকাল হাতে শুনেছু হামার এইঠে একখান পুল হবে, কিন্তু কয়বার মাপাযোখা নিয়ে যাছে পুল আর হয়না, গ্রামের ছুয়া পুতালা ইস্কুল যাবার বেলা ঐ খটখটি খানত খালি পরে যাছে।

ডুংডুংগী এলাকার যশোদা রানী (৩৮) জানান, আমাদের বাড়ির বৌয়ের সন্তান প্রসবের ব্যাথা উঠলে আমরা অ্যাম্বুলেন্স আনতে পারিনি। কারণ সেতু নাই। পরে বাড়িতেই প্রসব করাতে হয়েছে।

গ্রামবাসীর দুর্ভোগের কথা রাধানগর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবু জাহেদ স্বীকার করেছেন এবং সাংবাদিকদের বলেন, পানি উন্নয়ন বোর্ডের সাথে বার বার যোগাযোগ করা হলেও কোন কাজ হয়নি।

তবে পঞ্চগড় এবং ঠাকুরগাঁও জেলার সীমানা নির্ধারনের জটিলতার কারণে দীর্ঘদিন যাবত এই সেতু নির্মাণ হচ্ছেনা বলে জানিয়েছেন আটোয়ারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমীন সুলতানা। খুব শীঘ্রই এ সমস্যার সমাধান করা হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।

আস/এসআইসু

Facebook Comments Box