শিশুর হাতে ফোন, আগুন নয় তো

আলোকিত সকাল ডেস্ক

গবেষণা বলছে, মোবাইল ফোন ব্যবহার করলে শিশুদের মানসিক বিকাশ বাধাগ্রস্ত হওয়ার পাশাপাশি রয়েছে ক্যানসারের ঝুঁকি। অতিরিক্ত মোবাইল ব্যবহারের ফলে একাকিত্ব থেকে এক সময় শিশুরা জড়িয়ে পড়তে পারে জঙ্গিবাদসহ নানা অপরাধের সঙ্গে। বিশেষজ্ঞরা শিশুদের হাতে মোবাইল ফোন না দেয়ার পরামর্শ দিয়েছেন।

‘আমার ছেলেমেয়েরা স্মার্টফোনের সব জানে’— বলে গর্ব করলেও জানেন কি আপনার এই স্বভাবই মারাত্মক ক্ষতি করছে শিশুর?

বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, এই অতিরিক্ত পরিমাণে স্মার্টফোনের টাচস্ক্রিন ব্যবহার মারাত্মক প্রভাব ফেলতে পারে আপনার শিশুর ওপর। এমনকি, ভবিষ্যতে তার পেন বা পেনসিল ধরতেও সমস্যা হতে পারে। অক্ষম হয়ে যেতে পারে আঙুলও।

সম্প্রতি ইংল্যান্ডে এনএইচএস ট্রাস্টের কয়েকজন চিকিৎসকের করা একটি গবেষণায় উঠে এসেছে এই ভয়ঙ্কর তথ্য।

বিশেষজ্ঞরা জানান, লেখা বিষয়টি কিন্তু হাতের কবজি ও আঙুলের এক জটিল যোগসাজশের ওপর নির্ভর করে। বাচ্চাদের ঠিক উপায়ে পেনসিল বা পেন ধরার জন্য আঙুল ও কবজির পেশিগুচ্ছের জোর দরকার হয়। এবং পেশির সঠিক সংকোচন-প্রসারণও প্রয়োজন। কিন্তু তা ক্রমশ কমে যাচ্ছে টাচস্ক্রিন ব্যবহারের ফলে।

এই প্রজন্মের শিশুদের অনলাইন গেম, মোবাইল, ট্যাব বা ভিডিও গেমের প্রতি অতিরিক্ত ঝোঁক তাদের আঙুলের ওপর চাপ তৈরি করে চলেছে প্রতিনিয়ত। আঙুলের গোড়ার দিকে পেশিগুলো ক্লান্ত হয়ে পড়লেও মিলছে না নিস্তার।

তাই লেখার সময় হয় হাতের লেখা নিয়ন্ত্রণে থাকছে না, নয়তো দ্রুত লিখতে না পারায় শেষ করে আসতে পারছে না প্রশ্নের উত্তর। সারাক্ষণ ঘাড় গুঁজে মোবাইলে মগ্ন থাকায় কম বয়সেই স্পনডিলাইটিসের শিকার হচ্ছে। যার ফলে আঙুল অসাড় হয়ে পড়ছে।

তাই বাচ্চার আঙুল সুরক্ষিত রাখতে দূরে রাখুন টাচস্ক্রিন মোবাইল, ট্যাব ও ভিডিও স্ক্রিন থেকে।

আস/এসআইসু

Facebook Comments Box