বাংলাদেশের নীরব অপেক্ষা

আলোকিত সকাল ডেস্ক

সাকিব লন্ডনে মা-বাবা, স্ত্রী ও সন্তানকে সময় দিচ্ছেন। মাশরাফির বাবাও এসেছেন। ক্যাপ্টেনের স্ত্রী ও দুই সন্তান সাহেল-হুমায়রা আগে থেকেই ছিলেন। মোস্তাফিজ ও রাহীও লন্ডনে। মাশরাফি অবশ্য বার্মিংহ্যামে রয়েছেন। অল্প কিছু খেলোয়াড়ই এই শহরে। বাকি সবাই বেড়াতে বের হয়েছেন। সবাই ভাবছেন, বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা বিশ্রামে আছেন।

এর মানে কি তারা এই বিশ্বকাপে সেমিফাইনালের আশা ছেড়ে দিয়েছেন? মোটেও না। বাঘ যেভাবে শিকারের জন্য অপেক্ষা করে, তেমন নীরব অপেক্ষা। ২ জুলাই ভারতের বিপক্ষে অগ্নিপরীক্ষা। অমন স্নায়ুক্ষয়ী ম্যাচের আগে নিজেদের হালকা মেজাজে রাখাটা জরুরি। বাংলাদেশের এই বিশ্বকাপে হতাশার কয়েকটি দিক রয়েছে। বিশ্বকাপ শেষে সেই অপ্রিয় প্রশ্নগুলো উঠবে।

সাইফউদ্দিন ছাড়া মোস্তাফিজ ও মাশরাফি এখনো নিষ্প্রভ। তবে ভারত ও পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ দুটিতে জাদু দেখাতে পারলে সে সমস্যা দূর হয়ে যাবে। বার্মিংহ্যামের এজবাস্টনে ভারতের মোকাবিলা করতে হবে। এই টুর্নামেন্টে মোকাবিলা করতে গেলে বাংলাদেশকে কিছু বাধা পেরোতে হবে। বাংলাদেশকে কিছু ব্যাপারে ভাবতে হবে, কিছু ইতিবাচক ও নেতিবাচক ব্যাপার রয়েছে- মাইদুল আলম বাবু, বার্মিংহ্যাম থেকে বাংলাদেশের চেনা ভেন্যু বাংলাদেশ এই মাঠে এর আগেও খেলেছে। একেবারে হাতের উল্টো পিঠের মতো চেনে তারা। অবশ্য রেকর্ড ভালো নয়। আগের তিনটি ওয়ানডে ম্যাচেই হেরেছে তারা। এই মাঠে প্রথম ম্যাচটি বাংলাদেশ খেলেছিল ১২ সেপ্টেম্বর ২০০৪ সালে।

সেবার প্রতিপক্ষ ছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। ২০১০ সালে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের কাছে হার। ২০১৭ সালের ম্যাচটি ছিল ভারতের বিপক্ষে। চ্যাম্পিয়নস ট্রফির সেই ম্যাচটিতেও হার। তাসকিন ছাড়া সবাই আছেন ২০১৭ চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে ভারতের বিপক্ষে যে দলটি বাংলাদেশের হয়ে খেলেছিল, সেই দলটির সবাই আছেন। শুধু নেই পেসার তাসকিন আহমেদ। তবে সাইফউদ্দিন ভালো করছেন। এটাই আশার কথা। বিশ্রামই শক্তি বাংলাদেশ ২৪ জুন খেলেছে আফগানিস্তানের সঙ্গে। আবার পরের ম্যাচটি ২ জুলাই রয়েছে।

বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা ভালো বিশ্রাম পেয়ে গেছে। ভারত অনেক শক্তিধর। তবে এই বিশ্রাম বড় অস্ত্র। ভারত বেশ ক্লান্ত। মোক্ষম সুযোগ টাইগাররা কাজে লাগাতে পারে। টুর্নামেন্ট শেষের দিকে। বৃষ্টি ইংল্যান্ডে গ্রীষ্ম ভালোভাবেই প্রবেশ করেছে। বৃষ্টি প্রায় প্রতিদিন হচ্ছে। ২ জুলাই ভারতের সঙ্গে বিশ্বকাপে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ। সেদিন অবশ্য বৃষ্টি নেই। তাই বলে স্বস্তি নেই। আরও অনেক দিন সামনে পড়ে রয়েছে। কখন আবার আবহাওয়া বিগড়ে বসে কে বলতে পারে। উইকেট বার্মিংহ্যামের উইকেট সব সময় স্পোর্টিং। বাংলাদেশের পেসারদের ভয়ঙ্কর চ্যালেঞ্জ হবে। ভারতের ব্যাটসম্যান ছাড়াও বোলাররাও এ বিশ্বকাপে অবিশ্বাস্য খেলছেন। স্পোর্টিং উইকেটে ভারতের সঙ্গে লড়াইটা কঠিন হবে।

আস/এসআইসু

Facebook Comments Box