কী করবেন কলেজে ভর্তির বাইরে থাকা শিক্ষার্থীরা

আলোকিত সকাল ডেস্ক

একাদশ শ্রেণিতে তিন ধাপের ভর্তি প্রক্রিয়া শেষে এখনো চার লাখের বেশি শিক্ষার্থী ভর্তির বাইরে রয়ে গেছেন বলে জানিয়েছেন ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান মু. জিয়াউল হক।
ডেইলি বাংলাদেশকে তিনি জানান, সারা দেশ মিলিয়ে ১৩ লাখ ১৩ হাজার ৩২৬ জন শিক্ষার্থী এখনো পর্যন্ত কলেজ ভর্তি নিশ্চায়ন করেছেন। বাদ রয়েছেন ৪ লাখ ৩৫ হাজার ৮৩৯ জন শিক্ষার্থী। যেখানে ২০১৯ সালের মাধ্যমিক ও সমমানের পরীক্ষায় পাশ করা শিক্ষার্থীর সংখ্যা ছিলো ১৭ লাখ ৪৯ হাজার ১৬৫ জন।

ভর্তির আওতার বাইরে থাকা এ বিশাল সংখ্যক শিক্ষার্থীদের নিয়ে কি ভাবছে ভর্তি সমন্বয় করা ঢাকা শিক্ষা বোর্ড? এমন প্রশ্নের জবাবে বোর্ড চেয়ারম্যান মু. জিয়াউল হক বলেন, আমরা অবশ্যই ওদেরকে ভর্তির আওতায় আনার চেষ্টা করেছি। এরপরও কেন এরা ভর্তির বাইরে রয়ে গেছে সেটি নিশ্চিত করে এখনই বলা যাচ্ছে না। তবে জুলাইয়ের প্রথম দিনে ক্লাস শুরু হওয়ার পর এদেরকে ভর্তি করার জন্য চেষ্টা করা হবে।

জিয়াউল হক জানান, সারাদেশের কলেজগুলোতে ১০ লাখেরও বেশি আসন এখনো খালি রয়েছে। এদের ইচ্ছে না থাকলে ভর্তি না হওয়ার কোনো কারণ দেখছি না। আসন খালি থাকা সাপেক্ষে এরা যে কোনো কলেজে ভর্তি হতে পারবে। এজন্য তাদেরকে অন্তত ভর্তি হতে কলেজে আসতে হবে।

এ বছর ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের ৩ লাখ ১৬ হাজার ৮৬৩ জন শিক্ষার্থী ভর্তি নিশ্চায়ন করেছে। দেশের অন্যান্য শিক্ষা বোর্ডের তুলনায় এই বোর্ডে শিক্ষার্থী ভর্তির হার সবচেয়ে বেশি। তবুও ঢাকা বোর্ডে প্রায় ২ লাখ আসন খালি রয়ে গেছে।

ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক অধ্যাপক হারুন অর রশীদ বলেন, নানা কারণে শিক্ষার্থীরা কলেজে ভর্তি নিশ্চায়ন করতে পারেনি। অনেকে বিদেশে পড়তে যাওয়ার চিন্তা করে ইচ্ছে করেই নিশ্চায়ন করেননি। তবে এখনো যদি তারা দেশে পড়াশোনা করতে চায় বা ভর্তি হতে চায় তাহলে তাদের ভর্তির সুযোগ রয়ে গেছে। তাদের জন্য কলেজে ক্লাস শুরু হওয়ার পর নতুন ভর্তির সুযোগ দেয়া হবে।

এদিকে নিশ্চয়ন পাওয়া শিক্ষার্থীরা আজ কলেজে ভর্তি হওয়া শুরু করেছে। জুনের ৩০ তারিখের মধ্যে ভর্তি সম্পন্ন করে জুলাইয়ের এক তারিখ থেকে একাদশ শ্রেণিতে ক্লাস শুরু করবে তারা। এজন্য দেশের কলেজগুলো সব ধরনের প্রস্তুতি রেখেছে বলে জানিয়েছে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড।

আলোকিত সকাল/এসআইসু

Facebook Comments Box