কালোজামের উপকারিতা

আলোকিত সকাল ডেস্ক

কালোজাম এমন একটি ফল যার উপকারিতা এতই বেশি যে, আপনাকে হয়তো আর ডাক্তারের শরণাপন্ন না-হলেও চলবে। এই ফলটির ভিতরে মজুত রয়েছে প্রচুর মাত্রায় পুষ্টিকর উপাদান। যেমন ধরুন-ভিটামিন সি,কে,বি৬,ফলেট,পটাশিয়াম,কপার,সোডিয়াম এবং ম্যাঙ্গানিজ। সেই সঙ্গে রয়েছে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, যা শরীর, ত্বককে চাঙ্গা রাখার পাশাপাশি ব্রেন পাওয়ার বাড়াতে এবং ক্যানসারের মত রোগকে দূরে রাখতেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। তবে ভাববেন না এখানেই শেষ।

এই সুস্বাদু ফলটি প্রতিদিন খেলে আরো যেসব উপকার পাবেন সেগুলো হল-হাড় শক্তপোক্ত হয়- ভিতর থেকে হাড়কে শক্তপোক্ত রাখতে জামের কোনো বিকল্প হয় না বললেই চলে। আসলে এই ফলটির ভিতরে উপস্থিত ক্যালশিয়াম, আয়রন, ম্যাগনেশিয়াম, ফসফরাস, জিঙ্ক এবং ভিটামিন ‘কে’ নানাভাবে হাড়ের স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটায়। ফলে নানাবিধ হাড়ের রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা আর থাকে না বললেই চলে।

রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে থাকে- এ বিষয়ে বেশ কিছু গবেষণায় দেখা গেছে, নিয়মিত এক বাটি করে জাম খাওয়া শুরু করলে শরীরের এমন কিছু উপাদানের প্রবেশ ঘটে, যার প্রভাবে ইনসুলিনের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পেতে সময় লাগে না। ফলে স্বাভাবিকভাবেই রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণের বাইরে যাওয়ার আর কোনো আশঙ্কা থাকে না বললেই চলে।
চুলের সৌন্দর্য বাড়ে- চুল পড়ে যাওয়া বা খুশকি হওয়া একটি বড় সমস্যা। চুলে জমে থাকা মৃত কোষদের সরিয়ে ফেলে চুলের স্বাস্থ্যের উন্নতিতে এই ফলটির কোনও বিকল্প নেই বললেই চলে। আসলে জামের অন্দরে উপস্থিত ভিটামিন বি এবং প্রো-অ্যান্থোসায়ানিডিন্স এক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।

হার্টের ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়- স্বাস্থ্য সচেতন সবাই জানেন যে, গত দশকে আমাদের দেশে কীভাবে কম বয়সিদের মধ্যে হার্টের রোগের প্রকোপ বৃদ্ধি পেয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে জাম খাওয়ার প্রয়োজন যে আরও বেড়েছে এ বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই। আসলে এই ফলটিতে উপস্থিত একাধিক উপকারী উপাদান একদিকে যেমন ব্লাড প্রেসারকে স্বাভাবিক রাখে, তেমনি রক্তে উপস্থিত খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রাও কমায়। ফলে হার্টের কোনও ধরনের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা একেবারে কমে যায়। জাম খেলে ডাক্তারের প্রয়োজন হয় না এমন ধারনা স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের।

আস/এসআইসু

Facebook Comments Box