সুশান্তের সঙ্গে দেখা হলেও কথা বলেননি শোয়েব আখতার

সুশান্তের সঙ্গে দেখা হলেও কথা বলেননি শোয়েব আখতার

স্পোর্টস ডেস্ক

বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের সঙ্গে দেখা হলেও, কথা না বলার আফসোসে পুড়ছেন পাকিস্তানের গতিতারকা শোয়েব আখতার। মুম্বাইয়ের একটি হোটেলে সুশান্তের সঙ্গে দেখা হয়েছিল শোয়েবের। সেদিন কথা বলেননি তিনি। আর এখন চাইলেও কথা বলার সুযোগ নেই।

কেননা গত ১৪ জুন সবাইকে হতবাক করে দিয়ে পরপারে পাড়ি জমিয়েছেন বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত। মুম্বাইয়ের বান্দ্রায় নিজ বাড়িতে ফ্যানে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায় সুশান্তের মরদেহ। তার মৃত্যু ছুঁয়ে গেছে ক্রিকেটাঙ্গনের মানুষদেরও।

ভারতীয় অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির বায়োপিক ‘এমএস ধোনি : দ্য আনটোল্ড স্টোরি’তে মূল চরিত্রে অভিনয় করার মাধ্যমে ক্রিকেটপ্রেমীদের প্রিয় অভিনেতায় পরিণত হয়েছিলেন সুশান্ত। তার সঙ্গে পরিচয় হয় অনেক ক্রিকেটারদেরও।

ঘটনাক্রমে শোয়েব আখতারও জানতে পারেন, ধোনির বায়োপিকে অভিনয় করেছেন সুশান্ত। যেদিন জেনেছেন, সেদিন সুশান্তকে দেখলেও ডেকে কথা বলা হয়নি শোয়েবের। প্রায় চার বছর আগে সেদিন কথা না বলার আফসোস এখন শোয়েবের মধ্যে।

এক ইউটিউব ভিডিওবার্তায় শোয়েব বলেছেন, ‘২০১৬ সালে ভারত থেকে ফেরার পথে মুম্বাইয়ের অলিভে ওর (সুশান্ত) সঙ্গে আমার দেখা হয়েছিল। সত্যি বলতে, ওকে দেখে একদমই আত্মবিশ্বাসী মনে হচ্ছিল না। আমার কাছ দিয়ে যাওয়ার সময় মাথা নিচু করে রেখেছিল। আমার বন্ধু আমাকে বললো যে, ও ধোনির ম্যুভি করছে।’

শোয়েব আরও বলেন, ‘আমার মনে হয়, এখন ওর অভিনয় দেখা উচিৎ আমার। সে খুবই বিনয়ী পরিবার থেকে উঠে এসেছে এবং ভালো ম্যুভি করেছে। সেই ম্যুভিটা দারুণ ছিল। তবে এখন আমার আফসোস হচ্ছে, কেন সেদিন ওকে থামিয়ে জীবন সম্পর্কে কিছু কথা বললাম না। আমি নিজের জীবনের কিছু অভিজ্ঞতা ওকে বলতে পারতাম। যা কি না ওকে জীবনকে অন্যভাবে দেখার একটা সুযোগ দিতে পারত। আমার এখন সত্যিই আফসোস হচ্ছে সেদিন কথা না বলায়।’

ধারণা করা হচ্ছে, জীবন নিয়ে অতিরিক্ত হতাশার কারণেই আত্মহত্যা করেছেন সুশান্ত সিং রাজপুত। শোয়েব মনে করেন, কোন অবস্থায়ই আসলে আত্মহত্যার মতো সিদ্ধান্ত নেয়া উচিৎ নয়। এসময় তিনি বলিউডের আরেক তার দীপিকা পাডুকোনের উদাহরণ দেন।

শোয়েব বলেন, ‘নিজের জীবন শেষ করে দেয়া কখনও সমাধান হতে পারে না। ঘুরে দাঁড়ানোটা জীবনের একটা সম্পদ। যখন তুমি জানো যে সমস্যায় আছো, তখন সেটা আলোচনা করা উচিৎ। ব্রেকআপের পর দীপিকা পাডুকোনও চিন্তিত হয়ে পড়েছিল। তখন সে সাহায্য নিয়েছে। আমি মনে করি সুশান্তেরও এমন সাহায্যের দরকার ছিল।’

Facebook Comments Box