সুনসান-ঢাকা.jpg
ঈদের ছুটিতে ফাঁকা ঢাকা, সুনসান রাজপথ

ঈদের ছুটিতে ফাঁকা ঢাকা, সুনসান রাজপথ

ব্যস্ত নগরী ঢাকা এখন ঈদের ছুটিতে ফাঁকা। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের ঝুঁকি থাকার পরও নাড়ির টানে স্বজনদের সঙ্গে ঈদ করতে গ্রামের বাড়ি চলে গেছেন এ শহরের লাখো বাসিন্দা। ঈদের ছুটিতে ফাঁকা ঢাকা প্রতি বছরের স্বাভাবিক চিত্র হলেও এ বছর রাস্তাঘাট অন্যান্য বছরের তুলনায় বেশি ফাঁকা রয়েছে।

কারণ, ঢাকা শহরে যারা রয়ে গেছেন মহামারি করোনা ভাইরাসের কারণে তারাও রাস্তায় খুব একটা বের হচ্ছেন না। ফলে রাস্তায় মানুষের যাতায়াত আরও কমে গেছে। অন্যান্য বছর ফাঁকা ঢাকায় সকাল থেকে শিশু-কিশোরদের আনন্দচিত্তে ঘুরে বেড়াতে দেখা গেলেও এ বছর ব্যতিক্রম চিত্র দেখা গেছে।

জাগো নিউজের এ প্রতিবেদক ঈদের সকালে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখেছেন অন্যান্য বছরের তুলনায় রাস্তায় মানুষের উপস্থিতি অনেক কম। খুব বেশি প্রয়োজন ছাড়া রাস্তাঘাটে কেউ বের হচ্ছেন না। মূলত করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের ঝুঁকি এড়াতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাসাতেই অবস্থান করছেন সকলে। সামান্য কিছু গণপরিবহন চললেও সেগুলোতেও যাত্রীসংখ্যা ছিল গত কয়েকদিনের তুলনায় অনেক কম। রাস্তার মোড়ে মোড়ে রিকশা নিয়ে রিকশাচালকদের অপেক্ষা করতে দেখা যায়। সকাল সকাল যাদের পশু জবাই ও অন্যান্য কাজ শেষ হয়ে গেছে তারা মাংস নিয়ে স্বজনদের বাড়ি বাড়ি ছুটে গিয়েছেন।

কেউ কেউ অবশ্য ছোট্ট শিশুদের নিয়ে মোটরসাইকেল ও রিকশায় ঘুরতে বের হন। কিছু তরুণকে ফাঁকা রাস্তায় দ্রুত বেগে মোটরসাইকেল চালাতেও দেখা যায়। তবে রাস্তাঘাটে যানবাহন নিয়ন্ত্রণে ট্রাফিক পুলিশকে ব্যস্ত থাকতে দেখা যায়নি।

দুপুর পৌনে ১টার দিকে বৃষ্টি নামলে রাস্তাঘাট আরও ফাঁকা হয়ে যায়। অন্যান্য বছর নগরীর প্রধান প্রধান সড়কসহ যত্রতত্র পশু কোরবানি করা হলেও এবার তা দেখা যায়নি। সকলে স্বাস্থ্যবিধি মেনে নিজ বাড়ির আঙিনাতে পশু জবাই করেছেন।

ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের দুই মেয়রই ২৪ ঘন্টার মধ্যে কোরবানির পশুর বর্জ্য অপসারণে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। সে লক্ষ্যে সকাল থেকে কাজে নেমেছেন সিটি কর্পোরেশনের পরিচ্ছন্ন কর্মীরা।

Facebook Comments