বিশ্বে করোনায় ৪ লাখ ৪১ হাজার মৃত্যু ছাড়াল

বিশ্বে মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় সাড়ে ৮১ লাখ। আর এতে মৃত্যুর সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৪ লাখ ৪১ হাজার।

জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, বুধবার সকাল পৌনে ৯টা পর্যন্ত বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮১ লাখ ৫৩ হাজার ২৪১ জনে। এদের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৪ লাখ ৪১ হাজার ৫০৫ জনের।

বিশ্বে একক দেশ হিসেবে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা সবচেয়ে বেশি যুক্তরাষ্ট্র। বুধবার সকাল পর্যন্ত দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ২১ লাখ ৩৬ হাজার ৪৩ জন। আর এতে মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ১৬ হাজার ৯৬২ জনের।

যুক্তরাষ্ট্রের পর করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ ব্রাজিল। আক্রান্ত ও উভয় মৃত্যু উভয়- বিবেচনায় দ্বিতীয় স্থানে থাকা লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিলে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৯ লাখ ২৩ হাজার ১৮৯ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৪৫ হাজার ২৪১ জনের।

মৃত্যু বিবেচনায় তৃতীয় স্থানে রয়েছে ইউরোপের দেশ যুক্তরাজ্য, তবে আক্রান্তের দিক থেকে দেশটির অবস্থান পাঁচ নম্বরে। এখন পর্যন্ত দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ৯৯ হাজার ৬০০ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৪২ হাজার ৫৪ জনের।

মৃত্যু বিবেচনায় চতুর্থ স্থানে রয়েছে ইউরোপের আরেক দেশ ইতালি, তবে আক্রান্ত বিবেচনায় দেশটির অবস্থান সাতে। ইতালিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ৩৭ হাজার ৫০০ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৩৪ হাজার ৪০৫ জনের।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ২০ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হওয়া দেশগুলোর মধ্যে রয়েছে ইউরোপের আরও দুই দেশ- ফ্রান্স ও স্পেন। মৃত্যু বিবেচনায় পঞ্চম স্থানে থাকা ফ্রান্স আক্রান্ত বিবেচনায় আছে নবম স্থানে। এখন পর্যন্ত দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৯৪ হাজার ৩৪৭ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ২৯ হাজার ৫৫০ জনের। আর মৃত্যু ও আক্রান্ত উভয় দিক দিয়ে ষষ্ঠ স্থানে থাকা স্পেনে এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ৪৪ হাজার ৩২৮ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ২৭ হাজার ১৩৬ জনের।

দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে আক্রান্ত বিবেচনায় বিশ্বের মধ্যে চতুর্থ স্থানে থাকা ভারতে বুধবার সকাল পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লাখ ৪৩ হাজার ৯১ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৯ হাজার ৯০০ জনের।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীন থেকে সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর বিশ্বব্যাপী এ পর্যন্ত ১৮৮টি দেশে ছড়িয়েছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। গত ১১ মার্চ করোনাভাইরাস সংকটকে মহামারি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

Facebook Comments Box