পবিত্র ঈদ-উল-ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন জনতা কলেজের অধ্যক্ষ জাহাঙ্গীর আলম

পবিত্র ঈদ-উল-ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন জনতা কলেজের অধ্যক্ষ জাহাঙ্গীর আলম

বদরুল আলম, নিজস্ব প্রতিনিধি, ৭১ কন্ঠ ডটকমঃ

লক্ষ্মীপুর জেলার শ্রেষ্ঠ অধ্যক্ষ হিসেবে ভুষিত জনতা ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ “মোঃ জাহাঙ্গীর আলম খাঁন” জনতা ডিগ্রি কলেজ, লক্ষ্মীপুর এর সম্মানিত  শিক্ষকমন্ডলী, কর্মচারীবৃন্দ ও প্রিয় শিক্ষার্থীবৃন্দসহ দেশবাসীকে  ঈদের শুভেচ্ছা ও মোবারকবাদ জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষে আমি ,  জনতা ডিগ্রি কলেজ, লক্ষ্মীপুর এর সম্মানিত  শিক্ষকমন্ডলী, কর্মচারীবৃন্দ ও প্রিয় শিক্ষার্থীবৃন্দসহ দেশবাসীকে জানাই ঈদের শুভেচ্ছা ও মোবারকবাদ। সকলকে “ঈদ মোবারক”। পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষে ঈদের শুভেচ্ছা ও মোবারকবাদ জানিয়ে অধ্যক্ষ ” মোঃ জাহাঙ্গীর আলম  খাঁন” বলেন, ‘ঈদ-উল-ফিতর মুসলমানদের অন্যতম প্রধান ধর্মীয় উৎসব। করোনা মহামারীর এই দুর্যোগের কারনে এবারের ঈদ উদযাপন হবে একেবারে ব্যাতিক্রম।  বিগত সময়ে এই ধরনের ঈদ আমাদের জীবনে কখনো আসেনি। এই দুর্যোগ থেকে তিনি আল্লাহ কাছে প্রার্থনা করে বলেন আল্লাহ যেন খুব তাড়াতাড়ি এই দুর্যোগ থেকে সকল মানুষকে রক্ষা করেন।

 

তিনি আরও বলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে কোথাও খোলা ময়দানে গনজামায়েত করা যাবেনা। স্ব্যাস্থ্য বিধি মেনে নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে মাস্ক পরে মসজিদে ঈদের নামাজ পড়ার জন্য বলা হয়েছে। তাই আমি সকলকে অনুরোধ করব সবাই যেন নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে স্বাস্থ্য বিধি মেনে মসজিদে ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় করেন।

 

অধ্যক্ষ “জাহাঙ্গীর আলম” তার প্রিয় শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্য করে বলেন প্রিয় শিক্ষার্থীবৃন্দ তোমরা এই মহামারিতে নিজেদের নিরাপদে রাখবে এবং সেই সাথে তোমাদের পরিবারের প্রতি যত্ন ও খেয়াল করবে। আজ তোমাদের প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ থাকলেও আমার অনুরোধ থাকবে তোমরা কখনো থামবেনা। এই লকডাউনের সময় যাতে তোমাদের পড়ালেখা থেমে না থাকে। মনে রেখ তোমরাই হবে এই দেশের আগামী।

 

তিনি আরও বলেন,মাসব্যাপী সিয়াম সাধনা ও সংযম পালনের পর অপার খুশি আর আনন্দের বারতা নিয়ে আমাদের মাঝে সমাগত হয় পবিত্র ঈদুল ফিতর। দিনটি বড়ই আনন্দের, খুশির।’ তিনি বলেন, ‘এ আনন্দ ছড়িয়ে পড়ে সবার মাঝে, গ্রামগঞ্জে, সারাবাংলায়, সারাবিশ্বে।  তিনি আরো বলেন, ‘ঈদ সবার মধ্যে গড়ে তোলে সৌহার্দ্য সম্প্রীতি ও ঐক্যের বন্ধন। ঈদ-উল-ফিতরের শিক্ষা সবার মাঝে ছড়িয়ে পড়ুক, গড়ে উঠুক সমৃদ্ধ বাংলাদেশ— এ প্রত্যাশা করি।’ তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। আবহমানকাল থেকে এখানে সব ধর্মের মানুষ মিলেমিশে বসবাস করছে। এই সম্প্রীতি আমাদের জাতীয় ঐতিহ্য।’  আরও বলেন, ‘ইসলাম শান্তি ও কল্যাণের ধর্ম। এখানে হিংসা-বিদ্বেষ, হানাহানির কোনও স্থান নেই। মানবিক মূল্যবোধ, পারস্পরিক সহাবস্থান, পরমতসহিষ্ণুতা ও সাম্যসহ বিশ্বজনীন কল্যাণকে ইসলাম ধারণ করে। ’তিনি আরও বলেন, ‘ইসলামের এই সুমহান বার্তা ও আদর্শ সবার মাঝে ছড়িয়ে দিতে হবে। ইসলামের মর্মার্থ ও অন্তর্নিহিত তাৎপর্য মানবতার মুক্তির দিশারি হিসেবে দিকে দিকে ছড়িয়ে পড়ুক, বিশ্ব ভরে উঠুক শান্তি আর সৌহার্দ্যে-পবিত্র ঈদ-উল-ফিতরে এ প্রত্যাশা করি।’ এই করোনা ভাইরাস মহামারি থেকে দেশ বাসিকে আল্লাহ হেফাজত করুন, আল্লাহর কাছে এই দোয়া করি।

 

 

Facebook Comments Box