হাজীগঞ্জের বাকিলা বাজারে অভিনব কায়দায় চুরি!

class="mail-message-content collapsible zoom-normal mail-show-images ">
জহিরুল ইসলাম জয় :
হাজীগঞ্জের বাকিলা বাজারে অভিনব কায়দায় বিসমিল্লাহ্‌ ভ্যারাটিজ স্টোরের মালামালসহ নগদ অর্থ চুরি হওয়ার ঘটনা ঘটে। ১৭ জুন বুধবার সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন, বাকিলা বাজার ব্যবসায়ী সমিতির নেতৃবৃন্দ, ইউপি চেয়ারম্যান ও থানা পুলিশ।
বুধবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে প্রতিষ্ঠানের মালিক স্বর্না গ্রামের প্রয়াত মুক্তিযুদ্ধা আবুল বাশারের ছেলে মো. হাছান মিজি (৩৬) তার দোকানের শাটার খুলে দেখে বিভিন্ন মালামাল এলোমেলো ভাবে পড়ে আছে। ক্যাশবাক্স খোলা, সিসি ক্যামরার মূখে কাগজ ও কাপড় দিয়ে প্যাঁচানো, তাকে থাকা জমানো বেনসন ও গোল্ডলিফ সিগারেটের সারিবদ্ধ সক কাটুন খালি। দোকানের মাঝামাঝি স্থানে গিয়ে দেখে দোকানের টিন কেটে চোরের দল মূল্যবান মালামাল, ট্রেড লাইসেন্স, কাগজপত্র,  কারেন্ট বিল, বিকাশ ও মোবাইল রিচার্জের কার্ড, ব্যাংক চেকবইসহ নগদ প্রায় কয়েক লক্ষ টাকা চুরি করে নিয়ে যায়।
খবর পেয়ে বাকিলা বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারন সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম ঘটনাস্থলে এসে চুরির আলামত দেখেন এবং বাজারের নাইট গার্ড শুকু মিয়াকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন এবং স্থানীয় চেয়ারম্যান ও থানা পুলিশকে খবর দেন।
বিসমিল্লাহ্‌ ভ্যারাটিজ স্টোরের সত্ত্বাধিকারী মো. হাছান মিজি বলেন, করোনা কালে দোকান তাড়াতাড়ি বন্ধ হয়ে যায়। মঙ্গলবার রাতে যে কোন সময় পাশের সেলুনের দোকান থেকে আমার দোকানের টিন কেটে ঢুকেছে চোরের দল। আমার মূল্যবান কাগজপত্র, বাজেটের আগে জমানো দামি সিগারেটের সবকাটুন, বিকাশ ও রিচার্জের কার্ড এবং নগদ অর্থসহ প্রায় ১৫ লক্ষ টাকার ক্ষতি সাধন হয়েছে। এর আগেও তিনবার এভাবে আমার দোকানে চুরি হয়েছে।
বাকিলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাহফুজুর রহমান ইউসুফ পাটওয়ারী বলেন, পুলিশ এসে আলামত দেখেছে, আমিও পরিদর্শন করে সিসি ক্যামরার ফুটেজ দেখেছি। দোকানের সব মূল্যবান জিনিষপত্র চুরি হয়েছে, প্রশাসনিক ভাবে চেষ্টা থাকবে দোকান্দারকে সহযোগিতার
Facebook Comments Box