সমুদ্রতলে স্থাপিত হলো জাদুঘর

আলোকিত সকাল ডেস্ক

ইতিহাসকে পরবর্তী প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে জাদুঘরের ভূমিকা অনেক। সারাবিশ্বেই বিচিত্র ধরনের অনেক জাদুঘর রয়েছে। তবে সম্প্রতি জর্ডানে উদ্বোধন হয়ে গেলো আরেকটি বিচিত্র জাদুঘরের। জর্ডানের সমুদ্র উপকূলীয় শহর আকাবাতে পানির নিচে স্থাপন করা হয়েছে একটি জাদুঘর। সামরিক এই জাদুঘরটি পানির নিচে জর্ডানের প্রথম জাদুঘর। জানা গেছে পানির ৯২ ফুট নিচে এই জাদুঘরটি স্থাপন করা হয়েছে।

গত বুধবার (২৪ জুলাই, ২০১৯) জাদুঘরটির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনেকগুলো সামরিক বাহন পরপর পানির নিচে ডোবানোর মাধ্যমে জাদুঘরের উদ্বোধন ঘোষণা করা হয়। এসব বাহনের মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন আকারের ট্যাংক, সেনা বহনকারী গাড়ি এবং হেলিকপ্টার। এই বাহনগুলো সাধারণত যুদ্ধের সময় ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

জাদুঘরের এই ধারণাটি নিয়ে আকাবা বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের বক্তব্য হচ্ছে, “এটি সম্পূর্ণ নতুন একটি ধারণা। এর মাধ্যমে পর্যটকরা নতুন অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হবেন। সামুদ্রিক পরিবেশে প্রদর্শনীর আনন্দ উপভোগ করতে পারবেন তারা।” রেড সী উপসাগরের একটি প্রবালদ্বীপে এই জাদুঘরটি স্থাপিত হওয়ায় খুব সহজেই পর্যটক টানতে পারবে বলে মনে করছেন তারা।

সামরিক যান দিয়ে এই ধরনের জাদুঘর নির্মাণের ক্ষেত্রে সামরিক বাহিনীর সহায়তা নেওয়া হয়েছে। জর্ডান রয়েল এয়ারফোর্স তাদের একটি হেলিকপ্টার দান করেছে এই জাদুঘরে। সেটিও ডুবানো হয়েছে গত বুধবার। তবে জাদুঘর কর্তৃপক্ষ নিশ্চিত করেছে সামরিক যান বাহন পানিতে ডুবানোর আগে বিপদজনক সব উপকরণ সরিয়ে নেয়া হয়েছে। এই জাদুঘরটি দেখতে চাইলে স্কুবা ডাইভিং, স্নোর কেলিং ছাড়াও কাঁচের তৈরি নৌযানে করে ঘুরে দেখতে পারবেন। সূত্র : বিবিসি

আস/এসআইসু

Facebook Comments