শুভ জন্মদিন

আলোকিত সকাল ডেস্ক

আজ ৯ জুন ঢালিউড, বলিউড এবং হলিউডের ৫ তারকার জন্মদিন। এ উপলক্ষে তাদের খুটিনাটি কিছু তথ্য তুলে ধরা হলো পাঠকদের জন্য-

নিপুণ : চিত্রনায়িকা নাসরিন আক্তার নিপুণের আজ জন্মদিন। আমেরিকা থেকে অনেকটাই উড়ে এসে বসেন চিত্রনায়িকা নিপুণ। প্রথম ছবি ‘রত্নগর্ভা মা’ এখনো মুক্তি না পেলেও নিপুণ অভিনীত বেশ কিছু সিনেমা মুক্তি পেয়েছে। তারমধ্যে কয়েকটি ছবি সুপারহিট ব্যবসা করে। যার দরুন মাঝখানে কদর বাড়তে থাকে নিপুণের। চলচ্চিত্রের পাশাপাশি বিজ্ঞাপনেও কাজ করেছেন এই নায়িকা। তবে বর্তমানে অনেকটাই বেকার হয়ে পড়েছেন তিনি। নাটকে টুকটাক অভিনয় করেই কাটছে তার চলমান সময়। মাঝখানে শাকিব খানের বিরুদ্ধে অশালীন মন্তব্য করায় তীব্র সমালোচনার কবলে পড়তে হয় এই অভিনেত্রীকে।

সোনম কাপুর : বলিউড অভিনেত্রী সোনম কাপুর। তিনি ইস্ট লন্ডন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেছেন এবং ইউনাইটেড ওয়ার্ল্ড কলেজ অফ সাউথ ইস্ট এশিয়ায় নিজের নাম নথিভুক্ত করিয়েছিলেন আন্তর্জাতিক ব্যাকালোরিয়টের জন্য। পরে সোনম মুম্বাই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক হন। তার প্রধান বিষয় ছিল রাষ্ট্রবিজ্ঞান এবং অর্থনীতি। তিনি ইংরেজি, হিন্দি এবং পাঞ্জাবি ভাষায় কথা বলতে দক্ষ।

আমিশা প্যাটেল : বলিউডে আরেক অভিনেত্রী আমিশা প্যাটেল। হিন্দির পাশাপাশি অল্প কিছু তেলেগু এবং তামিল চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেছেন তিনি। আমিশা ২০০০ সালের হিন্দি চলচ্চিত্র ‘কাহো না পেয়ার হে’র মাধ্যমে সিনেমা জগতে পরিচিতি লাভ করেন। চলচ্চিত্রটিতে তার সহশিল্পী ছিলেন ঋত্বিক রোশন। এটিই ছিল আমিশা অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র।

নাটালি পোর্টম্যান : মার্কিন চলচ্চিত্র অভিনেত্রী নাটালি পোর্টম্যান। সমসাময়িক অভিনেত্রীদের মধ্যে তাকে অন্যতম শ্রেষ্ঠ প্রতিভাবান বলে ধরে নেয়া হয়। ১৯৯০-এর দশকেই মডেল হিসেবে মিডিয়ায় যাত্রা শুরু করেন তিনি। ১৯৯৪ সালে স্বাধীন চলচ্চিত্র ‘লেওঁ’-তে অভিনয় করার মাধ্যমে সিনেমা ক্যারিয়ার শুরু হয় তার। সর্বাধিক জনপ্রিয়তা অর্জন করে ‘স্টার ওয়ার্স ত্রয়ী’ সিনেমায় অভিনয় করে। ২০১১ সালে তিনি বস্ন্যাক সোয়ান ছবিতে অভিনয় করার জন্য গোল্ডেন গেস্নাব অ্যাওয়ার্ড, একাডেমি অ্যাওয়ার্ড অর্জন করেছেন। ২০১২ সালে ফ্র্যান্সের কোরিওগ্রাফার বেঞ্জামিন মিলেস্নপাইডের সঙ্গে সংসার শুরু করেন নাটালি।

জনি ডেপ : ‘পাইরেটস অব দ্য ক্যারিবিয়ান’ তারকা জনি ডেপ জন্মগ্রহণ করেন ১৯৬৩ সালের ৯ জুন। তিনি একাধারে একজন মার্কিন অভিনেতা, চলচ্চিত্র প্রযোজক এবং সুরকার। শ্রেষ্ঠ অভিনেতা হিসেবে গোল্ডেন গেস্নাব পুরস্কার এবং স্ক্রিন অ্যাক্টরস গিল্ড পুরস্কার জিতেছেন তিনি। ১৯৮০’র দশকের টিভি সিরিজ ২১ জাম্প স্ট্রিটের মাধ্যমে ডেপ তার অভিনয় জীবন শুরু করেন। এরপর তিনি আরও প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ভূমিকার জন্য চলচ্চিত্রের দিকে পা বাড়ান। ১৯৯০ সালে ‘এডওয়ার্ড সিজরহ্যান্ডস’ চলচ্চিত্রের কেন্দ্রীয় চরিত্র অভিনয় করে প্রশংসিত হন তিনি। এরপর ‘স্স্নিপি হোল’ ১৯৯৯, চার্লি অ্যান্ড দ্য ‘চকোলেট ফ্যাক্টরি’ (২০০৫), ‘অ্যালিস ইন ওয়ান্ডারল্যান্ড’ (২০১০), র?্যাঙ্গো (২০১১) এবং ‘পাইরেটস অব দ্য ক্যারিবিয়ান’ (২০০৩) চলচ্চিত্রে অভিনয় করে সফলতা পান। ডেপ আটটি চলচ্চিত্রে তার বন্ধু ও চলচ্চিত্র পরিচালক টিম বার্টনের সঙ্গে কাজ করেছেন।

আস/এসআইসু

Facebook Comments Box