রূপকথার জন্ম দিলেন বার্টি

আলোকিত সকাল ডেস্ক

ফরাসি ওপেনের ফাইনালে চেক রিপাবলিকের মারকেতা ভন্দ্রোসোভাকে হারিয়ে ক্যারিয়ারের প্রথম গ্র্যান্ড স্ল্যাম শিরোপা জিতলেন অ্যাশলি বার্টি। প্যারিসের ক্লে কোর্টে শনিবার ১৯ বছর বয়সী ভন্দ্রোসোভাকে ৬-১ ৬-৩ গেমের সরাসরি সেটে উড়িয়ে দেন অস্ট্রেলিয়ান আট নম্বর বাছাই।

একই দিনে ছেলেদের এককে রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে বিশ্বের এক নম্বর তারকা নোভাক জকোভিচকে হারিয়ে ফাইনালে উঠেছেন চার নম্বর বাছাই ডমিনিক থিয়াম। ক্যারিয়ারের প্রথম গ্র্যান্ড স্ল্যাম শিরোপা অর্জনে আজ তার সামনে শেষ বাধা রেকর্ড ১১ বারের চ্যাম্পিয়ন রাফায়েল নাদাল। রজার ফেদেরারকে হারিয়ে পরশু ফাইনালে পা রাখেন ক্লে কোর্টের রাজা। প্রতিযোগিতায় টানা দ্বিতীয় ফাইনালে মুখোমুখি হতে যাচ্ছেন থিয়াম ও নাদাল।

বার্টি যা করলেন তাকে রূপকথা বলা যেতেই পারে। ২০১৪ সালে টেনিসকে বিদায় বলে পেশাদারি ক্রিকেটে নাম লেখান তিনি। কিন্তু টেনিসের মায়া ছাড়তে পারেননি। ১৭ মাস পর আবার ফেরেন কোর্টে। সেই বার্টির হাত ধরেই ১৯৭৩ সালের স্মৃতি ফিরিয়ে আনলো অস্ট্রেলিয়া। মার্গারেট কোর্টের পর এই প্রথম কোনো অস্ট্রেলিয়ান রোঁলা গ্যারোঁয় একক শিরোপা জিতলেন।

উচ্ছ্বাসিত বার্টি ম্যাচ শেষে বলেন, ‘এটা অবিশ্বাস্য, আমি কিছুটা বাকরুদ্ধ। আমি প্রায় নিখুঁত একটা ম্যাচ খেলেছি।’ তিনি বলেন, ‘গত দুই সপ্তাহ ছিল পাগলাটে।’ ‘অস্ট্রেলিয়ানদের জন্য জায়গাটা অসাধারণ এবং এই লক্ষ্য অর্জন করতে পেরে আমি অবিশ্বাস্যভাবে গর্বিত।’

আগামী সপ্তায় নারী এককের নতুন র‌্যাঙ্কিংয়ে দুইয়ে উঠে আসবেন ক্লে কোর্টের নতুন রানী। ১৯৭৬ সালে ইভোন্নে গোলাগংয়ের পর নারী এককে কোনো অস্ট্রেলিয়ানের সর্বোচ্চ র‌্যাঙ্ক হতে যাচ্ছে এটি। হারলেও ৩৮তম স্থান থেকে এক লাফে শীর্ষ ২০এ উঠে আসবেন ভন্দ্রোসোভা।

ওদিকে থিয়াম-জকোভিচ ম্যাচ শুক্রবার বৃষ্টির বাধায় স্থগিত রাখা হয়। বৃষ্টির সঙ্গে ঝড়ো বাতাসের প্রতিকূলতায় পরের দিনও খেলা বন্ধ হয় দুইবার। শেষ পর্যন্ত ৬-২ ৩-৬ ৭-৫ ৫-৭ ৭-৫ গেমের রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে শেষ হাসি হাসেন থিয়াম। গ্র্যান্ড স্ল্যামে টানা ২৬ ম্যাচ পর থেমে যায় জকোর জয়রথ। সেই সাথে শেষ হয় একই সময়ে সার্বিয়ান তারকার চারটি গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ের অনন্য কীর্তি গড়ার সম্ভবনা।

প্রথম অস্ট্রিয়ান হিসেবে দ্বিতীয়বার কোনো গ্র্যান্ড স্ল্যাম ফাইনালে খেলছেন থিয়াম। টেনিসের শীর্ষ প্রতিযোগিতায় বিশ্বের এক নম্বর তারকাকে প্রথমবারের মত হারাতে পারা ২৫ বছর বয়সী বলেন, ‘এটা ছিল আমার জন্য অবিশ্বাস্য একটা দিন।’

আস/এসআইসু

Facebook Comments Box