রায়পুরে বিদ্যুৎসংযোগ দেওয়ার নামে গ্রাহক থেকে ৩৫ লাখ টাকা আদায় দালাল রকি

লক্ষ্মীপুর জেলা প্রতিনিধি:বিদ্যুৎসংযোগ দেওয়ার জন্য রায়পুরের চরবংশী ইউনিয়নের চরকাছিয়া একটি গ্রাম থেকে একই ইউনিয়নের যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক স্থানীয় এক নেতা প্রায় ৩৫ লাখ টাকা আদায় করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক রকি ওই টাকা আদায় করেছেন। টাকা না দেওয়ায় অনেক আবেদনকারীকে বিদ্যুৎসংযোগ দেওয়া হচ্ছে না।ঘটনাটি চরবংশী ইউনিয়নের সমিতির বাজার থেকে চররমনী মোহন ইউনিয়নের বয়াডার এলাকায় পযর্ন্ত্র।
বিদ্যুৎসংযোগ জন্য আবেদনকারী ও স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে,চরকাছিয়া গ্রামের বাসিন্দা ৯ নং ওয়ার্ডের ফারুক মেম্বারের ছেলে রকি সেই পেশায় একজন ইলেকট্রিশিয়ান।স্থানীয় আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত তিনি। গ্রামের ৫০০ গ্রাহকের প্রত্যেকের কাছ থেকে সাড়ে ৭ হাজার টাকা করে নিয়েছেন রকি।এরই মধ্যে প্রায় ৪০০ গ্রাহকের মিটার লাগানো হয়েছে। আরও প্রায় ১০০ জন পুরো টাকা পরিশোধ না করায় তাঁদের এখনো মিটার দেওয়া হয়নি। এ ছাড়া অনেকে কোনো টাকা না দেওয়ায় বিদ্যুৎসংযোগ পাওয়া থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।
সরেজমিনে চরকাছিয়া গ্রামে গিয়ে একাধিক বাসিন্দার সঙ্গে কথা হয়। রুহুল আমিন,করীম, কামাল হোসেন,রাজু,মান্নান,মিনরা, মজিবুল মাঝি,বলেন,৭ হাজার টাকা দেওয়ার পর তাঁর বাড়িতে মিটার লাগানো হয়েছে। তবে এখনো বিদ্যুৎসংযোগ পাননি ।
কালা বুরিয়া রোডের শেষ মাথার স্থানীয় এলাকাবাসী আজাদ ,আলী আহম্মদ,সোহেল, মনচুর আহম্মেদ,মনির আহম্মদ,হোসেন,নজির ফারুক বলেন, তারা প্রত্যেকে ৭ হাজার পাঁচ শত টাকা করে রকিকে নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ পাওয়ার জন্য দিয়েছি।ঐ এলাকার ৪০০ শত পরিবার প্রত্যেকে ৭ হাজার পাঁচ শত টাকা দিয়ে মিটার পেয়েছেন।নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আরও ১০ জন গ্রাহক বলেন, তাঁরা যুবলীগ নেতা রকি কে সাড়ে ৭ হাজার টাকা করে দিয়ে মিটার নিয়েছেন। এসব মানুষ দ্রুত নতুন বিদ্যুৎসংযোগ দেওয়ার দাবি জানান।
এলাকায় খোঁজ নিয়ে জানা গেছে,সাড়ে ৭ হাজার টাকা হিসাবে ৫০০ জনের কাছ থেকে ৩৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা আদায় করা হয়েছে। যুবলীগ নেতা রকি বলেন,‘এক বছর ধরে গ্রামের মানুষের জন্য বিদ্যুৎসংযোগ পেতে কাজ করছি। এদিকে দালাল রকি টাকা নেওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন,।সরকার বিনা মূল্যে বিদ্যুৎসংযোগ দিচ্ছে, তারপরও কেন টাকা নেওয়া হচ্ছে এমন প্রশ্নের জবাবে রকি বলেন,‘পল্লী বিদ্যুৎ কার্যালয় ও ঠিকাদার টাকা ছাড়া কোনো কাজ করে না। আপনারা সবাই জানেন।’ টাকা নিয়েছি এখন কি হয়েছে।
লক্ষ্মীপুর পল্লীবিদ্যুৎ সমিতি জেনারেল ম্যানেজার শাহজাহান কবির পিবিএকে বলেন ,বিদ্যুৎসংযোগ পেতে কোনো দালাল বা নেতা-কর্মীকে টাকা না দেওয়ার জন্য আমরা নিয়মিত প্রচারনা চালাচ্ছি। সরকার বিনা মূল্যে ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দিচ্ছে।’ তিনি বলেন, গ্রামের মানুষ সরল সহজ বিষয়টি নিয়ন্ত্রণে আনতে একটু সময় লাগবে।

Facebook Comments