রামগঞ্জে নিখোঁজের ২৩দিন পর উদ্ধার করতে পারে নাই পুলিশ 

dir="auto" style="text-align: justify">রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধিঃ লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে নিখোঁজ হওয়ার ২৩দিন পর উদ্ধার করতে পারে নাই থানা পুলিশ পল্লী চিকিৎসক জাফর উল্লাহ (৬৫) কে।  সন্ধান না পেয়ে রবিবার (২৪ জুলাই) সকাল ১১ টায় রামগঞ্জ প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছে নিখোঁজের  পরিবার। জানাযায়, গত ২রা জুলাই শনিবার সকল সাড়ে ৮টায় উপজেলার পশ্চিম বিঘা সিন্নির বাড়িতে থেকে যাওয়ার পথে  নিখোঁজ হওয়া জাফর উল্লাহ বড় ছেলে তোফায়েল হোসেন রামগঞ্জ থানায় হারানো জিডি করেন। জিডি নং ১৩৬ তারিখ -০৩/০৭/২০২২ইং। জাফর উল্লাহর স্ত্রী তাজিয়া বেগম, বড় ছেলে তোফায়েল আহমেদ, ছোট ছেলে তসলিম হোসেন, মেয়ে জাহানারা আক্তার জানান, জাফর মিয়া (আমাদের বাবা) পল্লীচিকিসক ছিলেন।
তিনি কাঞ্চনপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক ছিলেন। ঘটনার দিন সকাল সাড়ে ৮টায় তিনি বাড়ির সামনে দোকানে যান। তারপর হতে তাকে আর খোঁজে পাচ্ছি না আমরা। তারা আরো জানান, পুলিশ প্রশাসন অনুসন্ধান চেষ্টা করছে, এবং  প্রতিদিন পুলিশ আমাদের খোঁজ খবর নেন।
জাফর উল্লাহ পাশ্ববর্তী ছৈয়দ বাড়ির সৌদি আরব প্রবাসি ইউনুছ মিয়া ওরুপে কুট্টির পরিত্যক্ত বাড়ি পরিচর্চা করতেন। দীর্ঘ কয়েকবছর যাবত কুট্টির পরিবার লক্ষ্মীপুর ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন। বর্তমানে রামগঞ্জ পৌরশহরে ভাড়া বাসায় বসবাস করেন। তোফায়েল আহমেদ ও তার মা তাজিয়া বেগম জানান, নিখোঁজ হওয়ার আগের দিন জাফর উল্লাহকে ইউনুছ মিয়ার ছেলেরা মারধর করে ও প্রাননাশের হুমকি দেন।
জাফর উল্লাহ নিখোঁজ হওয়ার পরপরই কুট্টির  ছোট ছেলে জাহিদ হোসেন পালিয়ে ডুবাই চলে যায়। সেখান থেকে হুমকি দিয়ে আসছে, বড় ছেলে মোঃ শামীম বাড়িতে থেকেই হুমকি দিয়ে আসছে। সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, স্হানীয়  মেম্বার নুর হোসেন, তৌহিদুল ইসলাম,এলাকার  মামুন হোসেন, আব্দুর রহিম, সৈয়দ রাসেল, মোঃ আনোয়ার হোসেন, মোঃ জনিসহ প্রমুখ।
কাঞ্চনপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নাছির উদ্দীন খান, মেম্বার নুর হোসেন ও মেম্বার তৌহিদুল ইসলাম জানান, উনি একজন সহজ সরল স্বভাবের মানুষ ছিলেন। তিনি কারো সাথে কোনো জামেলায় জড়াতেন না। রামগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ ( ওসি)  মোঃ ইমদাদুল হক জানান, জাফর উল্লাহর সন্ধান পেতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
Facebook Comments Box