রাজাকারদের তালিকা প্রকাশের দাবি বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেয়ায় বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ চাই’র অভিনন্দন

নিজস্ব প্রতিবেদক

স্বাধীনতার স্বপক্ষের অরাজনৈতিক সামাজিক সংগঠন বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ চাই যুদ্ধাপরাধী রাজাকার-আলবদর-আলশামস্সহ পাকিস্তানী দোসরদের পূর্ণাঙ্গ তালিকা প্রকাশ, ‘ভুয়া’ মুক্তিযোদ্ধা চিহ্নিতকরণের মধ্য দিয়ে রণাঙ্গনের মুক্তিযোদ্ধাদের যথাযোগ্য সম্মান-শ্রদ্ধা প্রর্দশন ও শহীদ পরিবারের মর্যাদা নিশ্চিতকরণের দাবিতে সোচ্চার ভূমিকা পালন করে আসছে।

এসব দাবিতে ঐতিহাসিক মুজিবনগর সরকার গঠনের ৪৮তম বর্ষ ২০১৯ সালের ১০ই এপ্রিল মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। এমতাবস্থায় গতকাল রোববার মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে রাজাকারদের তালিকা তৈরির বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনান্তে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বরাবরে রাজাকারদের তালিকা সংরক্ষণ ও প্রকাশের নির্দেশনা দিয়ে সুপারিশ পাঠানো হয়েছে।

এতে জানানো হয়, ‘মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ে থানা বা মহাকুমা অথবা জেলা প্রশাসন থেকে বেতন-ভাতা উত্তোলনকারী রাজাকারদের তালিকা যথাযথভাবে সংরক্ষণ ও প্রকাশের ব্যবস্থা নিতে একটি তালিকা মন্ত্রণালয়ে প্রেরণের পরামর্শ দেয়া হয়েছে। জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল আইন সংশোধন করারও কাজ চলছে।’

আমরা বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ চাই’র পক্ষ থেকে এই যুগান্তকারী উদ্যোগ গ্রহণের জন্য মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়কে অভিনন্দন ও ধন্যবাদজ্ঞাপন করছি। যা দীর্ঘদিনের ইতিহাস বিকৃতির পথ থেকে দেশ ও দেশবাসীকে সঠিক ধারায় ফিরিয়ে আনতে ও স্বাধীনতার স্বপ্ন বাস্তবায়নের পথে প্রতিবন্ধকতাগুলো দূর করতে কার্যকর ভূমিকা রাখবে বলে বিশ^াস করি।

আমরা প্রত্যাশা করছি, অবিলম্বে মুক্তিযোদ্ধাদের মর্যাদা সুরক্ষিতকরণ এবং শহীদ পরিবারের মর্যাদা নিশ্চিতকরণের যে যৌক্তিক দাবি রয়েছে তা বাস্তবায়নের ব্যাপারেও উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে।

বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ চাই’র আহ্বায়ক আসলাম-উদ-দৌলা এবং সদস্য সচিব খালেদ হাসান বিপ্লব এক যৌথ বিবৃতিতে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়কে অভিনন্দন জানিয়ে এসব কথা বলেন।

আস/এসআইসু

Facebook Comments