রাজশাহীর চারঘাটে ইট ভাটার প্রভাবে নষ্ট হচ্ছে লাখ টাকার আম

চারঘাট প্রতিনিধি

রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার আমের পরিচিত সারাদেশেই। এমনকি দেশের গন্ডী পেরিয়ে বিদেশের মাটিতেও এ আমের সুনাম রয়েছে। চারঘাটের আম বলতেই যেন অনেকের কাছে আলাদা একটা কদর পাওয়া যায়। চারঘাট উপজেলাবাসীও এই আম নিয়ে নানা স্বপ্ন গেঁথে থাকে। আমের উপরে নির্ভর করে এখানকার অর্থনীতির একটি বড় অংশ এবং অনেকের রুজি রোজগার।

কিন্তু এ বছর অনেকগুলো কৃষক ও ব্যাবসায়ীদের এ সপ্ন নষ্ট হতে চলেছে। সরকারী নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে চারঘাট উপজেলায় গড়ে উঠা ইট ভাটার বিরুপ প্রভাবে ৮-৯টি মৌজার ইট ভাটা সংলগ্ন জমির আম বাগানের ব্ল্যাক টিপ বা কালো আগা রোগে আক্রান্ত হয়ে নষ্ট হয়ে গেছে আম । এতে করে আম চাষীদের ক্ষতি হয়েছে লাখ লাখ টাকার। আর এ ক্ষতিতে আম চাষীদের মাথায় হাত পড়েছে। বাগান মালিক ও আম ব্যবসায়ীরা পথে বসতে বসেছে। দিশেহারা হয়ে পড়ছে আম বাগানের মালিক ও ব্যাবসায়ীরা।

চারঘাট উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আম নষ্ট হওয়ার কারন হিসাবে ইট ভাটাকে দায়ী করেছেন। তাই উপায় অন্তর না পেয়ে এ অঞ্চলের মানুষের আয়ের অন্যতম ফসল আম রক্ষার্থে অবৈধ্য ইট ভাটা ও নতুন ইট ভাটা নির্মাণ বন্ধে বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ প্রদানসহ নানা রকম তৎপরতা চালাচ্ছে আম চাষীরা।

উপজেলা নির্বাহী অফিসারও অবৈধ ইটভাটা বন্ধে নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করছেন।

ঝিকড়া গ্রামের আম ব্যাবসায়ী মোস্তাফিজুর রহমান জানান, এই অঞ্চলের ঝিকড়া,পাটিয়াকান্দি,অনুপামপুর,মুংলি,মিয়া­পুর ও আশেপাশের গ্রামে অনেক আম বাগান আছে। এই সব আম বাগানের আশেপাশে ফসলি জমিতে ও বসতি এলাকায় তিনটি ইট ভাটা রয়েছে চালু রয়েছে, আরো দুটি ইট ভাটা তৈরির কাজ চলছে। এসব ইট ভাটা থেকে নির্গত ধোঁয়া ও তাপের কারনে তার কেনা ছয় একর জমির আম বাগানের আমে কালো দাগ হয়ে পচে নষ্ট হয়ে গেছে। তিনি একেবারে পথে বসে গেছেন।

পাটিয়াকান্দি গ্রামের আম ব্যবসায়ী আব্দুল জাব্বার জানান, তার পাঁচ একর জমির আম বাগানের সমস্ত আম ব্ল্যাকটিপ রোগে আক্রান্ত হয়ে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। বড়াল নদীর ধারে বাগান হওয়ার কারনে প্রতিবছর এসব গাছের আমের রং ও ফলন সবচেয়ে ভাল হয়।অনেক লাভবান হওয়া যায়। কিন্তু এবছর একটা টাকাও ঘরে আসবেনা বলে জানান তিনি।

এব্যাপারে চারঘাট উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মুনজুর রহমান বলেন, ইট ভাটার বিরুপ প্রভাবের কারনে এসব আম বাগানের আমগুলো নষ্ট হয়ে গেছে। শুধু আম না,ইটের ভাটার ধোঁয়ার কারনে সব রকমের ফল ও ফসলের ক্ষতি হচ্ছে।

এ বিষয়ে চারঘাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুহাম্মদ নাজমুল হক বলেন, ইতিমধ্যেই ক্ষতিগ্রস্থ আম বাগানগুলো পরিদর্শন করা হয়েছে। আর অবৈধ ইট ভাটার বিরুদ্ধে আমাদের অভিযান চলমান আছে। সরকারী নিয়ম অমান্য করে কোনো ইট ভাটা চলতে দেওয়া হবেনা বলে জানান তিনি।

আস/এসআইসু

Facebook Comments