রাজশাহীতে মালদ্বীপ মডেল রাউধার মৃত্যুর তদন্ত প্রতিবেদন চায় ইন্টারপোল

রাজশাহী জেলা প্রতিনিধি

রাজশাহীতে ‘আত্মহত্যা’ করা মালদ্বীপের মডেল রাউধা আতিফের মৃত্যুর সবগুলো তদন্ত প্রতিবেদন চেয়েছে আন্তর্জাতিক পুলিশ সংস্থা-ইন্টারপোল। ভিসেরা, ময়নাতদন্ত ও সুরতহাল প্রতিবেদন চেয়ে ইন্টারপোলের মাধ্যমে মালদ্বীপ সরকারের পক্ষ থেকে চিঠি দেয়া হয়েছে বাংলাদেশকে।

ইন্টারপোলের এই চাহিদার ভিত্তিতে মামলার তদন্ত সংস্থা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) রাজশাহী কার্যালয় থেকে এসব কাগজপত্র তলব করেছে পুলিশ সদর দপ্তর।

এ ব্যাপারে পিবিআইয়ের উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) বনজ কুমার মজুমদার বলেন, আমরা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও পুলিশ সদর দপ্তরের ইন্টারপোল ডেস্কের মাধ্যমে এ বিষয়ে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য চিঠি পেয়েছি। তাই জরুরি ভিত্তিতে তথ্য-উপাত্ত পাঠানোর জন্য আমরা রাজশাহী অফিসকে বলেছি।

পিবিআইয়ের রাজশহী কার্যালয়ের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবুল কালাম আজাদ জানান, রাউধার আত্মহত্যার ময়নাতদন্ত ও ভিসেরা রিপোর্টসহ তিনটি গুরুত্বপূর্ণ প্রতিবেদন চেয়েছে পুলিশ সদর দপ্তর। সেগুলো পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে।

তিনি জানান, পিবিআইয়ের তদন্তেও রাউধা আত্মহত্যা করেছিল সেটা পাওয়া যায়। আমরা ইতিমধ্যে রাউধার আত্মহত্যার তদন্ত কাজ শেষ করেছি এবং আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করেছি। অন্যান্য সংস্থার তদন্ত শেষে পঞ্চমবারের মতো এ বিষয়ে তদন্ত চালায় পিবিআই।

উল্লেখ্য, রাউধা আতিফ রাজশাহীর ইসলামী ব্যাংক মেডিক্যাল কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী ছিলেন। ২০১৭ সালের ২৯ মার্চ মেডিকেলের ছাত্রী হোস্টেলের নিজ কক্ষ থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। তার মৃত্যুর ঘটনা নগরীর শাহমখদুম থানা পুলিশ, গোয়েন্দা পুলিশ ও সিআইডি তদন্ত করে। তবে রাউধার বাবা মোহাম্মদ আতিফ পুলিশের আত্মহতার প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করে আসছিলেন।

তার আবেদনের প্রেক্ষিতে ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে রাজশাহীর আদালত ঘটনাটি তদন্তের জন্য পিবিআইকে দায়িত্ব দেয়। তদন্ত শেষে পিবিআইও রাউধা আত্মহত্যা করেছেন মর্মে আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করে।

আস/এসআইসু

Facebook Comments Box