রাজশাহীতে পদ্মার অবৈধ বালুঘাট বন্ধে ব্যবস্থা নিতে হাইকোর্টের নির্দেশ

রাজশাহী প্রতিনিধি

রাজশাহী মহানগরীর তালাইমারী এলাকায় পদ্মার একটি অবৈধ বালুঘাট বন্ধে আইন অনুযায়ী প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে রাজশাহীর জেলা প্রশাসককে নির্দেশ দিয়েছেন মহামান্য হাইকোর্ট। আদেশ পরবর্তী ১৫ দিনের মধ্যে বিষয়টি নিষ্পত্তি করতেও বলা হয়েছে জেলা প্রশাসককে।

গত ১৫ মে বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহসান ও বিচারপতি কেএম কামরুল কাদেরের বেঞ্চ শুনানি শেষে এ আদেশ দেন। জেলা প্রশাসক রাজশাহীর বালু মহাল ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি।

হাইকোর্টের আদেশে বলা হয়েছে, পদ্মার কাজলা মৌজার তালাইমারী বালুঘাটটি কোনো প্রকার টেন্ডার ছাড়াই অবৈধভাবে মেসার্স আমিন ট্রেডার্সকে দেওয়া হয়েছে বলে আবেদনকারী নগরীর বুলনপুর এলাকার মোঃ আনোয়ার হোসেন গত ১৬ এপ্রিল রাজশাহীর জেলা প্রশাসক বরাবর একটি আবেদন করে তা বাতিলের আর্জি করেন। পরে তিনি প্রতিকার চেয়ে হাইকোর্টে রিট আবেদন করেন।

অভিযোগ অনুযায়ী তালাইমারী বালুঘাটটি আমিন ট্রেডার্সকে কোনো প্রকার টেন্ডার ছাড়াই দেওয়ার কারণে বালু মহাল ব্যবস্থাপনা আইন-২০১০ এর ১০ (১) ধারার লঙ্ঘন হয়েছে।

মোঃ আনোয়ার হোসেন তার অভিযোগে আরও বলেন, তালাইমারীতে পদ্মা থেকে বালু উত্তোলনের কারণে তিনি ব্যবসায়িকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। বালুঘাটটি যেহেতু কোনো টেন্ডার ছাড়াই দেওয়া হয়েছে সে কারণে এটি আইনত: অবৈধ এবং বাতিলযোগ্য। এছাড়া মধ্যশহর তালাইমারীতে সরকারি তালিকাভুক্ত কোনো বালুঘাটও নেই।

এদিকে রিট আবেদনকারী আনোয়ার হোসেনের আইনজীবী মিজানুর রহমান বলেন, কোনো প্রকার টেন্ডার ছাড়াই তালাইমারী বালুঘাট আমিন ট্রেডার্সকে দিয়ে জেলা বালুমহাল ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি ও রাজশাহীর জেলা প্রশাসন এ সংক্রান্ত সরকারি আইন লঙ্ঘন করেছেন।
শুনানি শেষে হাইকোর্ট আদেশে বলেছেন, আইন অনুযায়ী জেলা প্রশাসককে, আদেশ পরবর্তী ১৫ দিনের মধ্যে পদক্ষেপ নিতে হবে। অর্থাৎ বালুমহালটির ইজারা বাতিল করতে হবে তা বন্ধ করতে হবে।

অন্যদিকে নগরীর ঘন জনবসতি এলাকা তালাইমারী দিয়ে বালু উত্তোলন বন্ধের দাবিতে কয়েকটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন সাম্প্রতিক সময়ে আন্দোলন কর্মসূচির আয়োজন করেন। তারা ওই এলাকায় রুয়েট ও রাজশাহী বিশ্বদ্যিালয়ের মতো বড় দুটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ নগরীর পরিবেশ দূষণ রোধে তালাইমারী বালুঘাটটি বন্ধ করাসহ সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনগত পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি জানিয়ে আসছেন।

আস/এসআইসু

Facebook Comments