রাখাইনের ঘটনার দায় এড়াতে পারে না জাতিসংঘ: ড. মোমেন

আলোকিত সকাল ডেস্ক

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, মিয়ানমারের রাখাইন প্রদেশে বহু বছর ধরে জাতিগত নিপীড়ন ঘটলেও জাতিসংঘ এ নিয়ে সজাগ ছিল না। তারা কোনোভাবেই রাখাইনের ঘটনার দায় এড়াতে পারে না।

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) রাজধানীর বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল অ্যান্ড স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিস (বিস) মিলনায়তনে এক সেমিনারে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কথা বলেন।

বিস মিলনায়তনে ‘জেনেভা কনভেনশনের ৭০ বছর পূর্তি: আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইন ও আজকের মানবিক বিশ্ব’ শীর্ষক সেমিনারটি যৌথভাবে আয়োজন করে আন্তর্জাতিক রেড ক্রস কমিটি (আইসিআরসি) ও ডিপ্লোম্যাটিক করেসপন্ডেন্ট অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ (ডিকাব)।

সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে ছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। বক্তব্য রাখেন আইসিআরসির বাংলাদেশ হেড অব ডেলিগেশন ইখতিয়ার আসলনভ, বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির মহাসচিব ফিরোজ সালাহউদ্দিন, ডিকাব সভাপতি রাহীদ এজাজ, সাধারণ সম্পাদক নূরুল ইসলাম হাসিব প্রমুখ।

সেমিনারে উপস্থিতির একাংশ। ছবি: ডিএইচ বাদলপররাষ্ট্রমন্ত্রী ড বলেন, মিয়ানমারের রাখাইন প্রদেশে বহু বছর ধরে জাতিগত নিপীড়ন ঘটলেও জাতিসংঘ এ নিয়ে কখনো সজাগ ছিল না। সে কারণে তারা (জাতিসংঘ) রাখাইনের ঘটনার দায় এড়াতে পারে না। রাখাইনে দীর্ঘদিন ধরে রোহিঙ্গাদের ওপর নিপীড়নের ঘটনা ঘটলেও তারা গোপন করেছে। এর দায় তাদেরও নিতে হবে।

অপর এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, রাখাইনে রোহিঙ্গাদের ওপর নিপীড়নে মিয়ানমারকে অবশ্যই জবাবদিহি করতে হবে।

সেমিনারে ড. মোমেন বলেন, বিশ্বজুড়ে মানবতা লঙ্ঘন যেন না হতে পারে, সে জন্যই জেনেভা কনভেনশন হয়েছিল। সিরিয়া, সুদান, ইয়েমেনসহ বিশ্বের নানা স্থানে যুদ্ধ চলছে। সেখানে মানবতা লঙ্ঘিত হচ্ছে। মিয়ানমারের রাখাইনেও মানবতা লঙ্ঘিত হচ্ছে। তবে বাংলাদেশ বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।

আস/এসআইসু

Facebook Comments Box