রাউন্ড কাটের চাহিদা বেশি

আলোকিত সকাল ডেস্ক

দুই-তিন বছর আগে ঈদ বাজার মাতানো ‘পাখি’র মতো আর কোনও পোশাক দৃষ্টি কাড়তে পারেনি নারীদের। বাজার মাতানো সেই ড্রেসটি সেবার ব্যবসায়ীদের ব্যাপক ব্যবসা সাফল্য এনে দিয়েছিলো। এরপর আর এমন কোনও ড্রেস সেভাবে আকৃষ্ট করতে পারেনি। এ বছর সে রকম কোনো পোশাকের কাটতি না থাকায় ব্যবসায়ীরা যারপরনাই হতাশ। তবে এ বছর ঈদে ‘রাউন্ড কাট’ ড্রেসের চাহিদা দিন দিন বাড়ছে বলে জানিয়েছেন দোকানিরা। আর তাতেই ভালো ব্যবসা আশা করছেন দোকানিরা।

শুক্রবার (২৪ মে) রাজধানীর মৌচাক মার্কেটের ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে এ তথ্য জানা গেছে।

মৌচাক মার্কেটের দোকানিরা অবশ্য বলেছেন, গত বছর মোটামুটিভাবে ভালো দৃষ্টি কাড়া পাকিস্তানের লোন-এর মতই এবার ঈদে ‘রাউন্ড কাট’ ড্রেসটির চাহিদা আছে ব্যাপক। কুর্তি, লংকাট ও ভারতীয় আন ষ্টিচ ড্রেসের কাটতি রয়েছে বেশ।

মৌচাক মার্কেটের মিতালী ড্রেস হাউজের মালিক মোয়াজ্জেম হোসেন দৈনিক জাগরণকে বলেন, এ বছর মোটামুটি ভালো চলছে রাউন্ড কাট ড্রেস। ১৮ থেকে ৩০ বছর বয়সী মেয়েদের ব্যাপক চাহিদা এই ড্রেসটির প্রতি। তবে ভারতীয় এই ড্রেসটি এরইমধ্যেই অনেক ব্যবসায়ী নকল করে ফেলায় ক্রেতারা প্রতারিত হচ্ছেন।

নাম প্রকাশ না করা শর্তে এক দোকানি এই প্রতিবেদককে বলেন, ৫ হাজার পিস রাউন্ড কাট ড্রেস নিয়ম-নীতি অনুসরন করে আমদানি করেছেন তারা। কিন্ত এই পোশাক নকল হয়ে যাওয়ার কারণে তাদের ব্যবসা তেমন একটা হচ্ছে না। লোকসান গুণতে হচ্ছে তাদের।

মৌচাকের শাড়ির দোকানগুলোতে ক্রেতাদের তেমন একটা ভিড় দেখা যায়নি। ভিড় দেখা যায়নি স্বর্ণের দোকানগুলোতেও।

মৌচাক মার্কেটে নারীদের ড্রেস এবং প্রসাধনীর দোকানগুলোতেই ব্যাপক ক্রেতা সমাগম দেখা যায়। দিন-ভর ব্যাপক বেচা-কেনা হতে দেখা গেছে শুক্রবার। তবে পুরুষ ক্রেতার চেয়েও নারী ক্রেতাই ছিল বেশি।

আস/এসআইসু

Facebook Comments