যে যত প্রভাবশালীই হোক, অন্যায় করে পার পাবে না: কাদের

আলোকিত সকাল ডেস্ক

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যতদিন ক্ষমতায় আছেন তিনি যত ক্ষমতাশালী কিংবা প্রভাবশালীই হোন না কেন, কেউ অন্যায় করে পার পাবেন না। প্রত্যেকটা বিষয়ে তদন্ত হচ্ছে, খতিয়ে দেখা হচ্ছে। যদি কেউ অন্যায় করে তাকে শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে।

সোমবার (২৮ জুলাই) দুপুরে ধানমণ্ডিস্থ আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

ফেরিঘাটে এক যুগ্ম সচিবের গাড়ির জন্য ফেরি আটকে থাকায় এক কিশোরের মৃত্যুর ঘটনায় সরকারের প্রতিক্রিয়া নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন ওবায়দুল কাদের।

এছাড়া ডেঙ্গু মোকাবেলায় আওয়ামী লীগ তিন দিনের কর্মসূচি দিয়েছে বলেও জানান আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক।

কাদের বলেন, ডেঙ্গুকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছি, বন্যাকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছি। আর এই চ্যালেঞ্জ অনতিক্রম্য নয়। সমন্বিতভাবে চেষ্টা করে ডেঙ্গুকে আমরা জয় করব। ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে আমাদের করণীয় আছে। শুধু সরকারি দায়িত্বের মধ্যে আমাদের কর্মকাণ্ড সীমিত করতে চাই না। দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনার নির্দেশে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি যে তিনদিনব্যাপী জনসচেতনতা মূলক কর্মসূচি পালন করব। পরিচ্ছন্নতা অভিযান পরিচালিত করব। যেটা সারা বাংলাদেশে ৩১ জুলাই সকাল ১১ টা থেকে শুরু হবে।

সংবাদ সম্মেলনের আগে আওয়ামী লীগের সম্পাদকমণ্ডলীর সভা হয়। সভায় লন্ডনে চিকিৎসাধীন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কলের মাধ্যমে যোগ দেন। তিনি প্রায় ২৫ মিনিট দলীয় নেতৃবৃন্দের সঙ্গে সামগ্রিক বিষয়ে আলাপ আলোচনা করেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন,‘ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় এই ডেঙ্গু প্রতিরোধে এই অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। ডেঙ্গুকে আমরা সহজভাবে নিচ্ছি না। সিরিয়াসলি নিচ্ছি, আমরা সর্বাত্মক ভাবে প্রতিরোধ গড়ে তোলার চ্যালেঞ্জ নিয়েছি। আমাদের নেত্রী বলেছেন, কেন্দ্র থেকে তৃণমূল পর্যন্ত ডেঙ্গুর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে। আমরা সচেতনতামূলক, সতর্কতামূলক সভা-সমাবেশ করব, জনগণকে উদ্বুদ্ধ করতে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী লন্ডন থেকেও প্রতিনিয়ত খোঁজ খবর নিচ্ছেন। বৈঠক চলাকালে প্রধানমন্ত্রী তাদের সাথে কথা বলে পরিস্থিতি মোকাবেলায় প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিয়েছেন। চিকিৎসার ঝামেলা না থাকলে প্রধানমন্ত্রীর বিদেশ থাকার কথা নয়। তিনি ঢাকার দুই মেয়র ও স্বাস্থ্য মন্ত্রীকে দিকনির্দেশনা দিচ্ছেন। ডেঙ্গু এতটা প্রকট হবে আমরা আগে ভাবিনি। সরকার ও আওয়ামী লীগের মধ্যে কোনো সমন্বয়হীনতা নেই। সবাই ঐক্যবদ্ধ আছে বলেই আমরা মোকাবেলা করতে পারছি। যত ভয়াবহ বিস্তারই ঘটুক না আমরা মোকাবেলা করতে পারবো।

এ সময়ে দেশের বন্যা নিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বন্যার্তদের পুনর্বাসন না হওয়া পর্যন্ত আওয়ামী লীগ ও সরকার সব ধরনের সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করবে। বন্যা পরবর্তী পুনর্বাসন অব্যাহত থাকবে। যারা ঘর বাড়ি হারিয়েছে তাদের ঘর বাড়ি দেয়া হবে।

ডেঙ্গুর বিষয়ে দুই মেয়রের অসংলগ্ন কথার বিষয়ে জানতে চাইলে কাদের বলেন, কথাবার্তা স্লিপ হতে পারে। সবাই মানুষ।

যেকোন বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী কথা না বলা পর্যন্ত প্রশাসন নিষ্ক্রিয় থাকে অভিযোগটির বিষয়ে জানতে চাইলে সেতুমন্ত্রী বলেন, দেশে যেকোন জরুরি বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী কথা বলেন, এবারো বলেছেন। এটাই স্বাভাবিক। তার কথা সবাইকে এনকারেজ করে।

উপজেলা নির্বাচনে বিদ্রোহীদের ব্যাপারে দলীয় অবস্থান জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেছেন,আপনারা জানেন গত ওয়ার্কিং কমিটির মিটিংয়ে উপজেলা নির্বাচনে যারা সরাসরি বিদ্রোহ করেছে, কিংবা বিদ্রোহে মদত দিয়েছে এ দুই ধরনের লোককে শোকজ, দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়ার একটি সিদ্ধান্ত হয়েছে। যেহেতু বিষয়টি সারা বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলা উপজেলার সেখানে আমাদের একটি টিমওয়ার্ক আছে। তাদের অভিযোগগুলো আমাদের আট বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত আটটি টিমের কাছে গেছে। বন্যার কারণে আমরা যাচাই বাছাইয়ের জন্য সময় নিচ্ছি। প্রক্রিয়াটা কোনভাবেই স্থগিত বা বাদ হয়ে যাচ্ছে সেটা আসলে নয়। তাই প্রক্রিয়াধীন আছে, প্রক্রিয়া শেষ হলে আমরা ইমপ্লিমেন্টেশনে যাব।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল-আলম হানিফ, আব্দুর রহমান, জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিম, এনামুল হক শামীম, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আব্দস সবুর, উপ-দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, বন ও পরিবেশ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেনসহ আরো অনেকে।

আস/এসআইসু

Facebook Comments