যুদ্ধ হলে ইরান নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে

আলোকিত সকাল ডেস্ক

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, তিনি ইরানের সঙ্গে যুদ্ধ চান না। তবে যুদ্ধ শুরু হলে ইরান নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি। শুক্রবার মার্কিন টেলিভিশন চ্যানেল ‘এনবিসি’কে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র আলোচনার জন্য প্রস্তুত। তবে ইরানকে পারমাণবিক অস্ত্র উন্নয়নের কোনো সুযোগ তিনি দেবেন না। সংবাদ সূত্র : বিবিসি, রয়টার্স, পার্স টুডে

মার্কিন ড্রোন ভূপাতিত করায় পাল্টা ইরানে হামলা চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েও শেষ মুহূর্তে পিছু হটার একদিনের মাথায় ট্রাম্প তেহরানের সঙ্গে যুদ্ধে তার অনাগ্রহের বিষয়টি ফের ব্যক্ত করলেন। আন্তর্জাতিক বিভিন্ন গণমাধ্যমের খবরে বৃহস্পতিবার ভোরের দিকে ইরান যুক্তরাষ্ট্রের একটি গোয়েন্দা ‘ড্রোন’ (চালকবিহীন বিমান) গুলি করে ভূপাতিত করে বলে জানানো হয়। ‘আরকিউ-৪ গেস্নাবাল হক’ ড্রোনটি ইরানের দক্ষিণাঞ্চলীয় হরমুজগান প্রদেশে কুহমোবারকের কাছে আকাশসীমা লঙ্ঘন করেছিল বলে অভিযোগ তেহরানের। যুক্তরাষ্ট্র এ অভিযোগ অস্বীকার করে। গুলির সময় ড্রোনটি আন্তর্জাতিক আকাশসীমায় ছিল, ইরান ‘বিনা উস্কানিতে’ এ হামলা করেছে বলেও দাবি তাদের। ওই অঞ্চলে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সমর প্রস্তুতি নিয়ে দুই দেশের মধ্যে এমনিতেই উত্তেজনা বিরাজ করছে। তেহরান গুলি করে ড্রোন নামানোর পর তা নতুন মাত্রা পায়।

ড্রোনটি ভূপাতিত করে ইরান ‘চরম ভুল’ করেছে বলে বৃহস্পতিবারই এক টুইটে হুঁশিয়ার করেন ট্রাম্প। মার্কিন গণমাধ্যমগুলো পরে ড্রোন ভূপাতিত করায় মার্কিন সামরিক বাহিনী ইরানে হামলার প্রস্তুতি নিয়েও শেষ মুহূর্তে তা বাতিল করে বলে জানায়। হামলায় ইরানের অন্তত দেড়শ’ লোকের মৃতু্য হবে, এমনটা জানতে পেরে নির্ধারিত সময়ের মাত্র ১০ মিনিট আগে আক্রমণ বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয়ার কথা জানান ট্রাম্পও। মার্কিন প্রেসিডেন্টের মতে, একটি মনুষ্যবিহীন ড্রোন ভূপাতিত করার বদলায় দেড়শ’ মানুষের মৃতু্য যুক্তিযুক্ত হতো না। ট্রাম্প বলছেন, তারা ইরানের তিনটি স্থাপনায় হামলার পরিকল্পনা করেছিলেন। তবে হামলা চালানো হলে ওই অঞ্চলে নিয়োজিত যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনীর সদস্যদের জন্য বড় ধরনের ঝুঁকি তৈরি হতে পারে বলেও সতর্ক করেছিলেন পেন্টাগনের শীর্ষ কর্মকর্তারা।

শুক্রবার সকালে এ বিষয়ে একাধিক টুইট করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। তিনি বলেন, ইরানে হামলা চালানোর জন্য তড়িঘড়ি নেই তার। ট্রাম্প বলেন, ‘আমাদের সেনাবাহিনী পুনঃসজ্জিত, নতুন এবং এগিয়ে চলার জন্য প্রস্তুত, এখন পর্যন্ত বিশ্বের সেরা।’

ইরান ইসু্যতে নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠক ডেকেছে যুক্তরাষ্ট্র

এদিকে, ওয়াশিংটন-তেহরান উত্তেজনার প্রেক্ষাপটে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের রুদ্ধদ্বার বৈঠক ডেকেছে যুক্তরাষ্ট্র। সোমবার এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। জাতিসংঘে নিযুক্ত মার্কিন মিশনের পক্ষ থেকে নিরাপত্তা পরিষদের সহকর্মীদের এই বৈঠকের আমন্ত্রণ পৌঁছে দেয়া হয়েছে।

শুক্রবার জাতিসংঘে নিযুক্ত মার্কিন মিশনের পক্ষ থেকে সোমবার ১৫ সদস্যের নিরাপত্তা পরিষদের রুদ্ধদ্বার বৈঠক আহ্বান করা হয়। কূটনীতিকদের কাছে পাঠানো এই সংক্রান্ত একটি নোট ফাঁস হয়েছে। মার্কিন মিশনের নোটে বলা হয়, ‘ইরান সম্পর্কিত সর্বশেষ অগ্রগতি আমরা নিরাপত্তা পরিষদকে জানাব, আর সাম্প্রতিক ট্যাংকার বিস্ফোরণের ঘটনায় আমাদের তদন্তে পাওয়া নতুন তথ্য উপস্থাপন করব।’

গত দেড় মাসে মধ্যপ্রাচ্যে একাধিক তেলবাহী ট্যাংকারে বিস্ফোরণের ঘটনায় ইরানকে দায়ী করে আসছে ওয়াশিংটন। তেহরান এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছে। গত বৃহস্পতিবার একটি মার্কিন ড্রোন ভূপাতিত করে ইরানের সেনাবাহিনী। প্রথমে অস্বীকার করলেও পরে পেন্টাগনের পক্ষ থেকে ড্রোন ভূপাতিত হওয়ার কথা স্বীকার করা হয়।

যুক্তরাষ্ট্রকে জ্বালিয়ে দেয়ার হুমকি ইরানের

এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে চলমান চরম এই উত্তেজনার মাঝে শনিবার ওয়াশিংটনকে সতর্ক করে দিয়েছে তেহরান। তারা বলছে, ইসলামিক প্রজাতন্ত্রের বিরুদ্ধে যে কোনো ধরনের আগ্রাসন হলে মধ্যপ্রাচ্যে মার্কিন স্বার্থের ওপর ভয়াবহ পরিণাম নেমে আসবে। ইরানের সশস্ত্র বাহিনীর মুখপাত্র ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আবুল ফজল শেকারচি দেশটির আধা-সরকারি বার্তা সংস্থা ‘তাসনিম নিউজ এজেন্সি’কে বলেন, ইরানে একটি বুলেট ছোড়া হলে, তা যুক্তরাষ্ট্র এবং তার মিত্রদের স্বার্থে আগুন জ্বালিয়ে দেবে। এই অঞ্চলের বর্তমান পরিস্থিতি ইরানের পক্ষে রয়েছে।

আস/এসআইসু

Facebook Comments Box