যুক্তরাষ্ট্রের ২৮ পণ্যে শুল্ক বাড়াচ্ছে ভারত

‌আলোকিত সকাল ডেস্ক

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে আগত আপেল, অ্যালমন্ডসহ মোট ২৮টি পণ্যের ওপর শুল্ক বৃদ্ধি করতে যাচ্ছে ভারত। দেশটির ওপর থেকে যুক্তরাষ্ট্র তাদের বাণিজ্য সুবিধা প্রত্যাহারের পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে এমন পদক্ষেপ নিল দিল্লি। রোববার (১৬ জুন) থেকেই এ সিদ্ধান্ত পুরোপুরি কার্যকর হয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

এর আগে ২০১৭ সালে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প দায়িত্ব গ্রহণের পর ভারতসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সঙ্গে বাণিজ্য চুক্তি পুনর্বিবেচনার কথা বলেছিলেন। যার অংশ হিসেবে গত ৫ জুন ভারতের বিশেষ বাণিজ্য সুবিধা জিএসপি বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয় যুক্তরাষ্ট্র। এতদিন এই সুবিধার আওতায় প্রায় ৫৬০ কোটি ডলার পর্যন্ত শুল্কমুক্ত রপ্তানি বাণিজ্যের সুবিধা পেত ভারত।

যদিও এরই মধ্যে বিষয়টিকে একটি ‘দুর্ভাগ্যজনক’ উল্লেখ করে জাতীয় স্বার্থ ধরে রাখার ঘোষণা দিয়েছে ভারত সরকার। এর আগে বার্তা সংস্থা ‘রয়টার্স’ জানিয়েছিল, আগামী ২৮-২৯ জুন জাপানে অনুষ্ঠিত জি-২০ সম্মেলনে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বৈঠককে সামনে রেখে ভারত এমন সিদ্ধান্ত নিতে পারে।

এ দিকে গত বছরেই মার্কিন পণ্যের ওপর ১২০ শতাংশ হারে শুল্ক বসানোর ঘোষণা দিয়েছিল ভারত। তবে বাণিজ্য ইস্যুতে বারংবার আলোচনা চলতে থাকায় এই সিদ্ধান্ত বেশ কয়েকবার পিছিয়েছিল মোদী সরকার। পরবর্তীতে ২০১৮ সালের শেষ পর্যন্ত দুদেশের মধ্যে মোট ১৪ হাজার ২১০ কোটি ডলারের বাণিজ্য হয়েছে।

সর্বশেষ গত শনিবার (১৫ জুন) ভারত তাদের পূর্বের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আবারও এই শুল্ক বৃদ্ধির ঘোষণা দেয়। দেশটির বাণিজ্য মন্ত্রণালয় জানায়, যুক্তরাষ্ট্র থেকে আমদানিকৃত মোট ২৮টি নির্দিষ্ট পণ্যের ওপর বাড়ানো হচ্ছে এই শুল্ক।

বিশ্লেষকদের ধারণা, মার্কিন পণ্যে এমন হারে শুল্কারোপের বিষয়ে ভারত সরকারের সিদ্ধান্তে দুই দেশের মধ্যে রাজনৈতিক ও নিরাপত্তা বিষয়ক সম্পর্ক ক্রমশ ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। যা কোনো দেশের কাছেই কাম্য নয়। অপর দিকে চলতি মাসেই ভারত সফরের যাওয়ার কথা রয়েছে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওর। এই সফরে তিনি ভারতের জ্যেষ্ঠ নেতাদের সঙ্গে বাণিজ্য ইস্যুতে বিস্তর আলোচনা করতে পারেন।

আস/এসআইসু

Facebook Comments Box