যত্রতত্র এলপি গ্যাসের ব্যবসা

আলোকিত সকাল ডেস্ক

লক্ষ্মীপুরে সব ধরনের দোকানে অনুমোদনহীন এলপি গ্যাস সিলিন্ডার সরবরাহ করছেন বিভিন্ন কোম্পানির প্রতিনিধিরা। তবে অবৈধ সিলিন্ডার ব্যবসায় নেই প্রশাসনের হস্তক্ষেপ। এতে সিলিন্ডার ব্যবসার পরিধি বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়ছে আতঙ্ক।

জেলা শহরের বিভিন্ন এলাকাসহ শহরতলীতে যত্রতত্র চলছে এলপি গ্যাসের ব্যবসা। শহরের পানের দোকান, লন্ড্রির দোকান, চায়ের দোকান, ওষুধের দোকান, মুদি দোকান, ফ্লেক্সি লোডের দোকান, রড সিমেন্টের দোকানে এসব সিলিন্ডার পাওয়া যাচ্ছে। এছাড়া দোকানগুলোতে নেই ড্রাই পাউডার, সিইও-২, সরঞ্চামসহ অগ্নিনির্বাপক যন্ত্র।

লক্ষ্মীপুর জজ কোর্টের অ্যাডভোকেট মোশারফ হোসেন মিঠু বলেন, লাইসেন্সপ্রাপ্ত বিভিন্ন কোম্পানির ডিলারদের বিপণন কৌশলে আইন ভেঙে ব্যবসা করছে খুচরা ব্যবসায়ীরা। এছাড়া প্রশাসনের তদারকি না থাকার সুযোগে দেদারছে চলছে এ ব্যবসা। এতে পথচারী, শিক্ষার্থীদের জীবন নাশের হুমকী রয়েছে। যেকোন দুর্ঘটনা ঘটার আগে জরুরি পদক্ষেপ নিতে সংশ্লিষদের নজর দিতে হবে।

লক্ষ্মীপুর শহরের ওমেগা এলপি গ্যাসের ডিলার সৌরব হোসেন রুবেল বলেন, লাইসেন্সবিহীন অবৈধ ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে স্থানীয় প্রশাসনসহ বিস্ফোরক অধিদফতরের অভিযান না থাকায় খোলামেলা ব্যবসা হচ্ছে। অবৈধ সিলিন্ডার ব্যবসা বন্ধে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

লক্ষ্মীপুরের ডিসি অঞ্জন চন্দ্র পাল বলেন, অবৈধ সিলিন্ডার ব্যবসার বিষয়ে প্রত্যেক ইউএনওকে তদন্ত করে ব্যবস্থা নিতে বলেছি। এখন থেকে সংশ্লিষ্ট অধিদফতরের অনুমোদন ছাড়া সিলিন্ডার বিক্রয় করা যাবে না।

আস/এসআইসু

Facebook Comments