মোশাররফ করিমের ‘গোপন থাক সত্য’

আলোকিত সকাল ডেস্ক

মোজাফফর দীর্ঘদিন যাবৎ মালয়েশিয়ায় থাকেন। পুলিশ এবং ওখানকার প্রভাবশালী লোকদের সাথে তার উঠাবসা। সে তার এই প্রভাব কাজে লাগিয়ে নানান অপকর্ম করে বেড়ান। তামিলদের সাথে হাত মিলিয়ে প্রবাসী বাঙালিদের কিডন্যাপ করিয়ে সেই আবার মধ্যস্ততা করে পরোপকারী সেজে টাকা আদায় করেন।

বাঙালিদের পাসপোর্ট আটকে রেখে তার গ্যারেজে অর্ধেক বেতনে কাজ করতে বাধ্য করেন। আবার যেসব প্রবাসীর কাগজপত্র ঠিক নেই তাদের লিস্ট করে পুলিশে ধরিয়ে দেন। সেই আবার মধ্যস্ততা করে ছাড়িয়ে এনে দরদী সাজেন। সস্ত্রীক দেশে বেড়াতে এসে হঠাৎ অসুস্থ্য হয়ে যান মোজাফফর। সাথে সাথে হসপিটালে ভর্তি করানো হয়। মোজাফরের ক্যান্সার ধরা পড়ে। উন্নত চিকিৎসার জন্য মালয়শিয়া ফেরত নেওয়া হয়। মোজাফফর মানসিকভাবে ভীষণ ভেঙে পড়েন।

এক সময় বুঝতে পারেন তিনি আর বাঁচবেন না। এটা তার পাপের শাস্তি। আল্লাহর কাছে সারাক্ষণ কান্নাকাটি করেন, আর সেই মানুষগুলোকে খুঁজে বেড়ান যাদের উপর নির্যাতন করেছিলেন। খুঁজে খুঁজে সবার কাছে হাতে পায়ে ধরে মাফ চান। আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করে- ‘আল্লাহ সবার কাছে মাফ চেয়ে যেনো মরতে পারি এই কয়টা দিন হায়াত দাও আমায়।’ অনেককে খুঁজে পেলেও রহমান চাচাকে খুঁজে পান না। তিনি মারা গেছেন সেটাও জানতেন না মোজাফফর! রহমান চাচার কবরে গিয়ে কান্নাকাটি করেন। যে স্ত্রীর উপর এতো নির্যাতন করেছেন সে স্ত্রী তার এই জীবনের শেষ মুহূর্তে আরো ভালোবাসা দিয়ে আকড়ে রাখেন। অবাক হয়ে শুধু ভাবেন কি অবিচারটাই না করা হয়েছে অবলা মানুষটার উপর। তার কাছে মাফ চাওয়ার সাহসও হয় না। একদিন কান্নাকাটি করে শেষবারের মত বউয়ের কাছে মাফ চেয়ে নেন।

কিন্তু অবাক করা বিষয় হলো মালয়শিয়ার রিপোর্টে কোনো ক্যান্সার ধরা পড়ে না। কেন? জানা যাবে টেলিফিল্মের শেষে। মোশাররফ করিম ও সাজিন আহমেদ বাবুর রচনা এবং সাজিন আহমেদ বাবুর পরিচালনায় টেলিফিল্ম ‘গোপন থাক সত্য’ বাংলাভিশনে প্রচার হবে ঈদের চতুর্থ দিন বেলা ২টা ১০ মিনিটে। টেলিফিল্মে অভিনয় করেছেন মোশাররফ করিম, নাবিলা ইসলাম, রোবেনা রেজা জুঁই, মাহমুদুল ইসলাম মিঠু, শহীদুল্লাহ সবুজ, উজ্জল মাহমুদ, মারুফ মিঠু প্রমুখ।

আস/এসআইসু

Facebook Comments Box