মৃত্যু নিশ্চিত জেনেও ঝুঁকি নিয়ে ঘোড়াশাল রেল ব্রিজে উৎসব

আলোকিত সকাল ডেস্ক

মৃত্যুর ঝুঁকি নিয়ে পলাশ উপজেলায় ঘোড়াশাল ফ্ল্যাগ সংলগ্ন শীতলক্ষ্যা নদীর পাড়ে ও ব্রিজের রেলিংয়ে ঈদ উৎসবে মেতেছে হাজারো মানুষ। এতে দেখা গেছে ঈদের দিন বিকেল থেকে পাড়ি জমান বিভিন্ন এলাকার নারী-পুরুষ-শিশুরা।

সরেজমিনের দেখা গেছে, নরসিংদী জেলার শিল্পঞ্চাল পলাশ ঘোড়াশাল শীতলক্ষ্যা নদীর পাড়ে অবস্থিত দেশের একমাত্র দুতলা রেলওয়ে স্টেশন ঘোড়াশাল ফ্ল্যাগ ও পাশের ৩টি সেতুতে উপচে পড়া ভিড়। এসময় প্রিয়জনদের সাথে উৎসবমূখর পরিবেশে সুন্দর মুহূর্ত গুলো ক্যামেরায় বন্দি করতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন বিনোদন প্রেমীরা। এতে ট্রেন আসলে মৃত্যু নিশ্চিত জেনেও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রেল ব্রিজে ঝুকছেন হাজারো মানুষ।

এছাড়া দেখা গেছে, রেলওয়ে স্টেশনের সামনে এ ঈদ উৎসবে বিভিন্ন খাবার দোকান ও শিশুদের জন্য খেলনার দোকান গুলোতে ছিল উপচে পড়া ভিড়। তিনটি সেতুতেও ছিলো চোখে পড়ার ভিড়।

ঘোড়াশাল টেক পাড়ার জাহাঙ্গীর আলম জানান,পলাশে বিনোদনের কোনো স্থান নেই বলে এখানেই পরিবার নিয়ে ঘুরতে আসা হয়। বিকেলের পরিবেশটাও অনেক সুন্দর। এ স্থানটির চারপাশের মনোরম প্রাকৃতিক দৃশ্য সবার নজর কেড়েছে।

পলাশের শিলা আক্তার জানান, এখানে ঘুরতে এসে অনেক ভালো লেগেছে। এবারই প্রথম ঈদ উৎসব পালন করতে চলে আসলাম এখানে। এতো মানুষ জড়ো হওয়ার কথা শুধু বন্ধুদের কাছে শুনতাম। হাজারো মানুষের সমাগম দেখে তাই প্রমাণিত হলো।

ঘোড়াশালের নাঈম খান জানান, সবচেয়ে ঝুঁকির বিষয়টি যেটি চোখে পড়লো তা হল রেললাইনের সেতুর উপর দিয়ে শত শত মানুষ এপার থেকে ওপারে পাড়ি দিচ্ছে। অনেকেই আবার রেললাইনের উপর দীর্ঘ সময় অবস্থান করতে দেখা গেছে। এই সময়ে ট্রেন চলে আসলে ঘটে যেতে পারে যেকোনো বড় ধরনের দুর্ঘটনা। তাই এখানে ঈদসহ যেকোন উৎসবে মিলিত হয়ে আনন্দ উপভোগ করা অনেকটাই ঝুঁকি হয়ে পড়ে।

আস/এসআইসু

Facebook Comments Box