মুখে গামছা বেঁধে বৃদ্ধাকে ধর্ষণ

আলোকিত সকাল ডেস্ক

মুখে গামছা বেঁধে ৬৫ বছরের বৃদ্ধাকে ধর্ষণ করেছে হরিজন স¤প্রদায়ের এক যুবক। এমন নিকৃষ্ট ঘটনা ঘটেছে নীলফামারীর ডোমার উপজেলায়। এ ঘটনার বর্ণনা দিতে গিয়ে বৃদ্ধা কান্নায় ভেঙে পড়েন। পুলিশ ধর্ষক সাধন দাসকে আটক করেছে। খুলনায় ঘুমের ওষুধ খাইয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের লাইব্রেরিতে নিয়ে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এছাড়া সাভারে ৭ বছরের শিশু ও রাজবাড়িতে চার বছরের শিশুকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

নীলফামারী : মুখে গামছা বেঁধে ৬৫ বছরের ঘুমন্ত বৃদ্ধাকে ধর্ষণ করেছে হরিজন স¤প্রদায়ের এক যুবক। নীলফামারীর ডোমার উপজেলার ভোগডাবুড়ি ইউনিয়নের চিলাহাটি ঈদগাহপাড়া গ্রামে গতকাল সোমবার ভোরে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার পর ধর্ষক সাধন দাসকে এলাকাবাসীর সহযোগিতায় আটক করে পুলিশ। আটক সাধন দাস চিলাহাটি মার্চেন্ট উচ্চ বিদ্যালয়ের ঝাড়ুদার শংকর দাসের ছেলে। ধর্ষণের শিকার বৃদ্ধার স্বামী একই বিদ্যালয়ের নৈশপ্রহরী। পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, ধর্ষণের শিকার বৃদ্ধা চার সন্তানের জননী। চার সন্তানকেই বিয়ে দিয়েছেন তিনি। বৃদ্ধার নাতি-নাতনি রয়েছে। মার্চেন্ট উচ্চ বিদ্যালয়ের জমিতে ঘর তুলে বসবাস করে আসছেন ওই বৃদ্ধা।

ঘটনার বর্ণনা দিতে গিয়ে কাঁদতে কাঁদতে বৃদ্ধা বলেন, অন্য ধর্মের হলেও সাধন দাস আমাকে বড় আম্মা বলে ডাকতো। প্রতিদিনের মতো রোববার রাতে আমার স্বামী বিদ্যালয়ে পাহারা দিতে চলে যায়। ঘরের দরজা বন্ধ করে ঘুমিয়ে পড়ি আমি। কিন্তু ফজরের আজানের কিছু সময় আগে সিঁধ কেটে ঘরে ঢুকে সাধন। পরে ঘুমন্ত অবস্থায় আমার মুখে গামছা বেঁধে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায় সে।

সকাল ৬টার দিকে স্বামী বাড়ি এসে ঘরের সিঁধ কাটা দেখে চিৎকার করলে ছুটে আসেন প্রতিবেশীরা। তারা এসে দেখেন গুরুতর অবস্থায় বিছানায় পড়ে আছেন বৃদ্ধা। সেখানে তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। পরে ঘটনার বিস্তারিত জানান বৃদ্ধা। বিষয়টি তাৎক্ষণিকভাবে পুলিশকে জানানো হয়। এরপর অভিযান চালিয়ে নিজ বাড়ি থেকে সাধন দাসকে আটক করে পুলিশ।

চিলাহাটি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ নুরুল ইসলাম বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ধর্ষণের বিষয়টি স্বীকার করেছে সে। তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
খুলনা : ঘুমের ট্যাবলেট খাইয়ে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে চারুকলা ইন্সটিটিউটের লাইব্রেরিতে এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা বিভাগের ১৬তম ব্যাচের ছাত্র পাপ্পু কুমারের বিরুদ্ধে। পাপ্পু বঙ্গবন্ধু পাঠক ফোরামের খুবি শাখার সভাপতি। ঘটনার পর পাপ্পু বিশ্ববিদ্যালয়ে গেলে ছাত্ররা তাকে মুখে কালি লাগিয়ে গলায় জুতার মালা ঝুলিয়ে ক্যাম্পাস থেকে বের করে দেয়।

সূত্র জানায়, খুবির চারুকলা অনুষদে চিত্রকলা প্রদর্শনী ছিল। পাপ্পু প্রদর্শনী দেখানোর নাম করে ওই মেয়েকে ডেকে নেয়। মেয়েটি চারুকলায় যাওয়ার পর তাকে ঘুমের ট্যাবলেট খাইয়ে চারুকলার লাইব্রেরিতে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করে। এরপর পাপ্পু নিজের রুমে গিয়ে ঘুমিয়ে পড়ে।

সাভার : আশুলিয়ায় ৬৪ বছরের এক বৃদ্ধ কর্তৃক সাত বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এব্যাপারে গত রোববার আশুলিয়া থানায় একটি ধর্ষণ মামলা রুজু করা হয়েছে। তবে এ ঘটনায় এখনও ধর্ষককে আটক করতে পারেনি পুলিশ।

জানা যায়, অভিযুক্ত ধর্ষক আজগর আলী (৬৪) গাইবান্ধা জেলার সুন্দরগঞ্জ থানাধীন শান্তিরাম এলাকার মৃত দারাজ উদ্দিনের ছেলে। তিনি আশুলিয়ার গুমাইল উত্তরপাড়া এলাকার একই বাড়ির পাশ্ববর্তী একটি কক্ষে ভাড়া থেকে একটি কারখানায় নিরাপত্তাকর্মী হিসাবে কাজ করেন। ঘটনার পর থেকে তিনি পলাতক।

মামলার এজাহারে নির্যাতিতা শিশুর মা উল্লেখ করেন, তিনি ও তার স্বামী মিজানুর রহমান পোশাক কারখানায় চাকুরি করেন। ঘটনার দিন আমরা কারখানার কাজে সকাল ৮টায় বাসা থেকে বের হয়ে যাই। ওইদিন দুপুরে পার্শ্ববর্তী কক্ষের ভাড়াটিয়া আজগর আলী আমার ৭ বছরের শিশু কন্যাকে বাথরুমে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করে। এরআগেও গত ১৬ জুলাই সকাল ১০টায় আজগর আলী তার রুমে ডেকে নিয়ে শিশুটিকে ধর্ষণ করে।

রাজবাড়ী : রাজবাড়ীতে চল্লিশ বয়সী এক রাজমিস্ত্রী’র বিরুদ্ধে চার বছর বয়সী শিশুকে ধর্ষণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এই অভিযোগে শিশুটির বাবা বাদী হয়ে গতকাল সোমবার রাজবাড়ী থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। এ মামলায় রাজবাড়ী সদর উপজেলার চন্দনী ইউনিয়নের ঘোরপালান গ্রামের মৃত. জয়নাল আবেদীনের রাজমিস্ত্রী ছেলে আজম শেখ (৪০) কে আসামি করা হয়েছে।

শিশুটির মা জানান, রাজমিস্ত্রীর আজম শেখ বিস্কুট খাওয়ানোর লোভ দেখিয়ে শিশুটিকে নিজ ঘরের মধ্যে নিয়ে যায়। সে সময় ওই বাড়িতে তার পরিবারের অন্য কোন সদস্য ছিলো না। এ সুযোগে আজম শিশুটিকে ধর্ষণ করে। ওই সময় মেয়েটি চিৎকার করে।

তার চিৎকার শুনে প্রতিবেশি মহিলারা এগিয়ে আসে এবং তারা ঘরের মধ্যে মেয়েটিকে কান্নাকাটির পাশাপাশি নগ্ন অবস্থায় দেখতে পায়। সে সময় সুকৌশলে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে মেয়েটিকে উদ্ধার করা রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে মেয়েটি ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে।

আস/এসআইসু

Facebook Comments