মিয়ানমার সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে নতুন যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ

আলোকিত সকাল ডেস্ক

মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে রাখাইন রাজ্যে নতুন করে যুদ্ধাপরাধ সংঘটনের অভিযোগ উঠেছে। মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের নতুন এক প্রতিবেদনে মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছে। তবে, সেনাবাহিনী তাদের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

অভিযোগে সংস্থাটির পক্ষে বলা হয়েছে, ভিন্ন জাতির বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী গেরিলা বাহিনীর সদস্যরা সেনাবাহিনীর হাতে ঢালাওভাবে গ্রেফতার হওয়ার পাশাপাশি বিচার বহির্ভূত হত্যা এবং নির্যাতনের শিকার হয়েছে।

হামলার শিকার হওয়া এলাকার মানুষের সাথে কথা বলে এবং নানারকম ছবি, ভিডিও এবং স্যাটেলাইট থেকে পাওয়া ছবি যাচাই করে এই প্রতিবেদনটি তৈরি করেছে অ্যামনেস্টি। এছাড়া নির্যাতন, গুম এবং গণগ্রেপ্তারের বিস্তারিত বর্ণনা তুলে ধরা হয় ঐ প্রতিবেদনে।

তবে, হামলার বিষয়টি অস্বীকার করলেও মিয়ানমারের সেনাবাহিনী গতমাসে ৬ জন বেসামরিক ব্যক্তিকে হত্যার কথা স্বীকার করেছিল।

শুধু বেসামরিক নাগরিকদের ক্ষতি করাই নয়, সেনাবাহিনী তাদের নির্যাতন করেছে এবং মানবাধিকার লঙ্ঘন করেছে – এমন অভিযোগও এনেছে অ্যামনেস্টি। সেনাবাহিনী এবং বিদ্রোহকারীদের মধ্যে হওয়া সাম্প্রতিক সংঘাতে ৩০ হাজারেরও বেশি বেসামরিক বৌদ্ধ নাগরিক গৃহহীন হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

বুধবার প্রকাশ হওয়া অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের প্রতিবেদনে বলা হয় যে সেনাবাহিনীর ‘ঢালাওভাবে চালানো হামলায়’ বেসামরিক নাগরিকরাও নিহত হয়েছে।

এর আগে ২০১৭ সালে রাখাইনে রোহিঙ্গা মুসলিমদের বিরুদ্ধে অভিযানের সময় মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ উঠেছিল মিয়ানমার সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে।

আস/এসআইসু

Facebook Comments