ভোগান্তি নিয়েই ট্রেনে ঈদযাত্রা শুরু

আলোকিত সকাল ডেস্ক

প্রিয়জনের সঙ্গে ঈদ উদযাপন করতে ঢাকা ছাড়তে শুরু করেছে মানুষ। তবে প্রথম দিনেই ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে যাত্রীদের। সবচেয়ে বেশি ভোগান্তিতে পড়েছে উত্তরবঙ্গগামী মানুষ। কেননা ঢাকা থেকে ছেড়ে যাওয়া উত্তরবঙ্গগামী প্রায় সব ট্রেনই নির্ধারিত সময়ের চেয়ে ছেড়েছে দেরিতে। এছাড়া চট্টগ্রামগামী সোনার বাংলা, সিলেটগামী পারাবত এক্সপ্রেসও দেরিতে কমলাপুর ছেড়েছে।

শুক্রবার রাজধানীর বিমানবন্দর রেলস্টেশন ও কমলাপুর স্টেশন ঘুরে দেখা গেছে, স্টেশনগুলোতে উপচেপড়া ভিড়। সবাই অপেক্ষায় রয়েছেন কাঙ্ক্ষিত ট্রেনের জন্য। কিন্তু ট্রেনের যেন দেখা নেই। কারণ সকাল ৯টায় রংপুর এক্সপ্রেস কমলাপুর ছেড়ে যাওয়ার কথা থাকলেও তা এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত স্টেশনে এসে পৌঁছায়নি।

স্টেশনে ট্রেনের তথ্য ডিসপ্লেতে ট্রেনটি ছাড়ার সম্ভাব্য সময় দেয়া হয়েছে, দুপুর ২টা ১০ মিনিট। কিন্তু সে সময়েও ট্রেনটি ছাড়তে পারবে কি-না তা নিয়ে সংশ্লিষ্টদের সন্দেহ রয়েছে।

এদিকে সকালে রাজশাহীগামী ধূমকেতু ভোর ৬টায় ছেড়ে যাওয়ার কথা থাকলেও তা দুই ঘণ্টা দেরিতে ছেড়ে গেছে। চট্টগ্রামগামী সোনার বাংলা এক্সপ্রেস সকাল ৭টা ৪৫ মিনিটে ছাড়ার নির্ধারিত সময় থাকলে কমলাপুর ছেড়ে যায় সকাল সোয়া ৮টায়। সিলেটগামী পারাবত এক্সপ্রেস সকাল ৬টা ৪০ মিনিটে ছাড়ার সময় থাকলেও ছেড়ে যায় সাড়ে ৭টায়। আর সকাল ৮টার চিলাহাটিগামী নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেনটি আড়াই ঘণ্টা দেরি করে সকাল সাড়ে ১০টায় ছেড়ে যায়।

অপরদিকে সকালে ঈদযাত্রা উপলক্ষে যাত্রীদের খোঁজ নিতে কমলাপুর স্টেশনে আসেন রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন। এ সময় তিনি ট্রেন, প্লাটফর্ম ঘুরে যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলেন।

পরে স্টেশনে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, শুক্রবার সারাদিন কমলাপুর স্টেশন থেকে ৫২টি ট্রেন ছেড়ে যাবে। বেলা ১১টা পর্যন্ত মোট ১৮টি ট্রেন ছেড়ে গেছে। এর মধ্যে দেরি হয়েছে চারটির, আর সবচেয়ে বেশি দেরি হচ্ছে রংপুর এক্সপ্রেসের।

রেলমন্ত্রী বলেন, ট্রেনটির প্রথম দিনে প্রায় সোয়া সাত ঘণ্টা দেরি হতে পারে। এ জন্য আমরা খুবই দুঃখিত। তবে এটা সমাধানে উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। রংপুর থেকে রংপুর এক্সপ্রেস নামে অন্য একটি ট্রেন যাত্রী নিয়ে ঢাকায় আসবে। ফলে আজকের এ বিলম্ব আগামীকাল থেকে হবে না।

আস/এসআইসু

Facebook Comments