ভাতিজা সম্বোধনের ফেস্টুন ঝুলছে রাজধানীজুড়ে!

আলোকিত সকাল ডেস্ক

রাজধানী ঢাকার বিভিন্ন রাস্তার মোড়ে, ব্যস্ত সড়কে, অলি-গলি কিংবা ফ্লাইওভারের নিচে সাম্প্রতি দেখা গেছে ‘ভাতিজা’ সম্বোধনের এক অভিনব সচেতনতামূলক ফেস্টুন। যা নিয়ে নগরীর মানুষদের মধ্যে চলছে নানা আলোচনা। এসব ফেস্টুন যদিও বিভিন্ন হাস্যরসাত্মক সংলাপে ভরা, কিন্তু এগুলোর বার্তা বেশ শক্তিশালী।

দেখা যায়, রাজধানী গুলশানের এক ব্যস্ত রাস্তার ধারের খুঁটিতে অভিনেতা ডিপজল কানে হাত চেপে দাঁড়িয়ে আছে। সেখানে লেখা ‘ভাতিজা, এত হর্ণ বাজাও ক্যান?’ এ এলাকায় হরহামেশাই গাড়িগুলো হর্ণ বাজায়। ফলে, ফেস্টুনের এমন সম্বোধন স্বভাবতই হর্ণ দেয়া ড্রাইভারদের মাঝে এক ধরণের বিব্রতকর অবস্থা তৈরি করে।

ফেস্টুনের এ জায়গাটি পার হওয়ার সময় প্রায়ই দেখা যায় ড্রাইভার আর যাত্রীরা একে-অন্যদের ছবিটা দেখিয়ে হাঁসে এবং নিজেদের মধ্যে আলোচনা করে। মজার বিষয় অনেকেই এরপর আর হর্ণ বাজায় না!

রাজধানীর ধানমন্ডিতেও এক ফুটওভার ব্রীজের পাশের খুঁটিতে এমন অন্য একটা ফেস্টুনে লেখা আছে- ‘ভাতিজা… ঐ যে ফুটওভার ব্রীজ। একটু কষ্ট কইরা দু’কদম হাঁটো’। এখানকার পথচারীদের অনেকেই অলসতা বা সচেতনতার অভাবে ঐ ওভারব্রীজ রেখে ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পার হয়। কিন্তু, ফেস্টুনটি নজরে পড়তেই তাদের মাঝে এক ধরণের লজ্জাবোধ কাজ করে এবং মূল রাস্তা থেকে উঠে গিয়ে ওভারব্রীজে রাস্তা পাড়ি দেয়। ওভার ব্রীজটির পাশেই আছে একটি বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়। সে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদেরও দেখা যায় এ ফেস্টুনের সামনে এসে নিজেদের মধ্যে ছবিটা নিয়ে আলোচনা করতে এবং দাঁড়িয়ে সেলফি তুলতে।

এমন অসংখ্য সেলফি আর ছবির কারণে এ ফেস্টুনগুলো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও বেশ আলোচিত। অনেকেই ডিপজলের এ ভিন্ন চরিত্রের উপস্থাপনে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছে। কারো কারো মন্তব্য ছিলো, এ ধরণের ভিন্নধর্মী সচেতনতামূলক কাজ সত্যিই প্রশংসার। কেননা, এগুলো সাধারণ মানুষকে সরাসরি কোন কাজের আদেশ বা অনুরোধ না করে বরং রুপকভাবে বিবেককে প্রশ্ন করে।

ছবিগুলোর নিচেই বড় করে শিরোনাম ছিলো ‘দেশ আমার, দোষ আমার’। ইতোপূর্বেও এ শিরোনামে এমন ভিন্নধর্মী সমাজ সচেতনতামূলক কাজের উপস্থাপনা রাজধানীবাসীর মাঝে দিয়েছিলো ভিন্ন অনুভূতি। জানা যায়, এ কাজগুলোর পৃষ্ঠপোষকতায় ছিলো আরএফএল গ্রুপ।

আস/এসআইসু

Facebook Comments