বেড়াতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার

আলোকিত সকাল ডেস্ক

বরিশালে হিজলায় বন্ধুর সাথে বেড়াতে গিয়ে, ভৈরবে স্কুলের ভিতর কিশোরীকে ধর্ষণ করা হয়। এছাড়াও বাগেরহাটের শরণখোলায় স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টা করা হয়। আমাদের সংবাদ দাতাদের পাঠানো প্রতিবোদন।

বরিশাল ব্যুরো : বন্ধুর সাথে বরিশালের হিজলা উপজেলায় বেড়াতে গিয়ে মাছের ঘেরের নির্জন বাগানে গণধর্ষনের শিকার হয়েছে এক যুবতী। যুবতিটি হিজলা থানায় গিয়ে অভিযোগ দায়েরের পরে পুলিশ রাতেই দুই ধর্ষক বরগুনা জেলার তালতলী উপজেলার জাকির গোলন্দাজ এবং তার বন্ধু হিজলার সাইফুলকে গ্রেফতার করেছে। ধর্ষিতা যুবতীর বাড়ি পার্শ্ববর্তী মেহেদিগঞ্জ উপজেলার ধুলিয়া মধ্যেরচর গ্রামে।

হিজলা থানার ওসি এসএম মাকসুদুর রহমান সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, ধর্ষণের শিকার যুবতী ভান্ডারী গানের শিল্পী। গত শুক্রবার দুপুরে সে তার পূর্ব পরিচিত জাকির গোলন্দাজের সঙ্গে পার্শ্ববর্তী হিজলা উপজেলায় বেড়াতে যায়। জাকির পুরাতন হিজলার চর সংলগ্ন জনৈক শাহাবুদ্দিনের মাছের ঘের সংলগ্ন নির্জন বাগান বাড়ি নিয়ে গিয়ে বন্ধুদের সাথে নিয়ে পালাক্রমে যুবতীটিকে ধর্ষণ করে। এ ঘটনার পর যুবতী থানায় অভিযোগ করলে পুলিশ ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে প্রধান দুই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে। যুবতীর দেয়া অভিযোগ মামলা হিসেবে রুজু করে জাকির ও সাইফুলকে ওই মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়েছে বলেও পুলিশ জানিয়েছে। শনিবার আদালতের মাধ্যমে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে। ধর্ষিতাকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য শনিবার শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

বরিশালের এসপি মো. সাইফুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া মাত্রই দুই প্রধান অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত অন্যদের গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে।

শরণখোলায় ৫ম শ্রেনীর ছাত্রীকে ধর্ষন চেষ্টা
শরণখোলা (বাগেরহাট) উপজেলা সংবাদদাতা : বাগেরহাটের শরণখোলায় ৫ম শ্রেনীর এক ছাত্রীকে ধর্ষনের চেষ্টা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার রাজৈর গ্রামে এ ঘটনায় ঘটলেও শনিবার সকালে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে শরণখোলা থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।
পুলিশ ও স্বজনরা জানায়, বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার রাজৈর গ্রামের বাসিন্দা ও রাজৈর ফাজিল মাদ্রাসার ৫ম শ্রেনীর জনৈক ছাত্রী (৯) কে শিয়াল দেখানোর কথা বলে প্রতিবেশী ট্রাক ড্রাইভার কবির হাওলাদার ডেকে নেয় বাড়ির একটি পরিত্যক্ত ঘরে। সেখানে নিয়ে জোর করে তার পরিহিত প্যান্ট খুলে ফেলে তাকে ধর্ষন করার চেষ্টা করে। এ সময় তার চিৎকারে বাড়ির লোকজন এগিয়ে এলে কবির সেখান থেকে পালিয়ে যায়।

খোন্তাকাটা ইউপি চেয়ারম্যান জাকির হোসেন খাঁন মহিউদ্দিন জানান, ওই শিশুকে ধর্ষন চেষ্টার ঘটনা সত্য। শরণখোলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দিলিপ সরকার মামলা দায়েরের সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আসামি গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

ভৈরবে স্কুলের ভিতর ধর্ষণ

ভৈরব (কিশোরগঞ্জ) উপজেলা সংবাদদাতা : ভৈরবে কিশোরীকে মুঠোফোনে ডেকে এনে কিন্ডার গার্টেন স্কুলের ভিতর ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ঈদের পরদিন গত বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে দশটার দিকে পৌর শহরের ভৈরবপুর উত্তর পাড়ায় কাঁশফুল কিন্ডারগার্টেন স্কুলের ভিতর এ ঘটনা ঘটে।

ধর্ষিতা কিশোরী শহরের পঞ্চবটি এলাকার মৃত সাত্তার মিয়ার মেয়ে। এ ঘটনায় কিশোরীর মা বাদী হয়ে ভৈরব থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেছে। মামলায় কিশোরীর প্রেমিক রনি মিয়া প্রধান অভিযুক্ত আসামি করা হয়। এছাড়াও ধর্ষণে সহযোগিতা করায় কাঁশফুল কিন্ডার গার্টেন স্কুলের পিয়ন ইমন মিয়াসহ তার বন্ধু নূর মোহাম্মদ ও আশিককে আসামি করা হয়। এই মামলায় অভিযুক্ত ৪নং আসামি আশিককে গ্রেফতার করে ভৈরব থানা পুলিশ। ভৈরব থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোখলেছুর রহমান জানান, ঘটনার পরদিন কিশোরীর মা বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। মামলার অভিযুক্ত আসামি আশিককে গ্রেফতার করে গতকাল শনিবার কিশোরগঞ্জ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। রনি মিয়াসহ অন্যান্য আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে এ কর্মকর্তা জানান।

আস/এসআইসু

Facebook Comments Box