বেনাপোলে কোন নাগরিক যেন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত না হয় তার জন্য সতর্ক থাকতে হবে

স্টাফ রিপোর্টার বেনাপোল

যশোর জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বেনাপোল পৌর মেয়র আশরাফুল আলম লিটন বলেছেন, সারা দেশে এ বছর ডেঙ্গুতে আক্রান্তর সংখ্যা কয়েক হাজার রোগি। ইতিমধ্যে বেনাপোলের একজন নারী সহ কয়েকজন ঢাকায় চিকিৎসাধিন অবস্থায় মারা গেছে। আমাদের সেই সতর্কতা অবলম্বন করে বেনাপোলে যাতে একজন ও ডেঙ্গু জ্বরে মারা না যায় বা ডেঙ্গুতে আক্রান্ত না হয় সে দিকে সকলকে খেয়াল রাখতে হবে। বেনাপোল পৌরসভার সকল অলি গলি গ্রামের পচা নর্দমা কাস্টমস, বিজিবি, বন্দর সহ সকল অফিস এলাকায় মশা নিধনের জন্য স্প্রে করতে হবে। কথা গুলো বললেন বেনাপোল পৌর সভায় মশা নিধন এর স্প্রে উদ্বোধন অনুষ্ঠানে মেয়র লিটন।

রোববার বিকাল সাড়ে ৪ টার সময় বেনাপোল পৌর সভায় মশা নিধন এর স্প্রে উদ্ভোধন অনুষ্ঠানে মেয়র লিটন বলেন, আমার পৌর সভার ৮৮ হাজার ৬ শত নাগরীক সহ এ শহরে কাস্টমস, বিজিবি, উদ্ভিদ ও সংগোনিরোধ অফিস সহ রয়েছে বিভিন্ন এনজিও অফিস। এই শহরে বর্তমানে লক্ষাধিক লোকের রয়েছে বসবাস। সারাদেশে যে ভাবে এডিস মশার কামড়ে আক্রান্ত হয়ে মানুষ হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছে তা অত্যান্ত উদ্যেগ জনক। আমি তাই পুর্ব প্রস্তুতি হিসাবে মাস ব্যাপি মশা নিধনের জন্য সকল ব্যবস্থা করেছি। আমার পৌর সভার একটি মানুষ ও যেন মশার কামড়ে আক্রান্ত না হয় সে দিকে ওয়ার্ড কমিশনার সহ সকল কর্মচারীদের খেয়াল রাখার নির্দেশ দেন। তিনি বলেন প্রয়োজনে সকল ওয়ার্ডে জনসংখ্যা অনুপাতে ওয়ার্ড কমিটি করা হবে মশা নিধনের জন্য। এদের মধ্যে থাকবে ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের প্রধান, স্কুল কলেজ এর শিক্ষক, শিক্ষার্থী, অবসরপ্রাপ্ত সরকারী কর্মচারী কর্মকর্তা ও স্থানীয় গন্যমান্য ব্যাক্তি বর্গ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বেনাপোল পৌর প্যানেল মেয়র সাহাবুদ্দিন মন্টু, কমিশনার রাশেদ আলী , আব্দুল জুব্বার, মিজানুর রহমান, আমিরুল ইসলাম, পৌর স্যানিটারি ইন্সপেক্টর রাশিদা খাতুন প্রমুখ।

বেনাপোল পৌরসভায় স্প্রে করে কাস্টমস ও বিজিবি ক্যাম্পে মশা নিধনের স্প্রে করা হয়। এ সময় স্প্রে ম্যান শুকুর আলীর সাথে তদারকীতে বেনাপোল পৌর স্যানেটারি ইন্সপেক্টর রাশিদা খাতুন সহ সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কমিশনাররা উপস্থিত ছিলেন।

Facebook Comments