বদলে যাচ্ছে সেকেন্ডের হিসাব

আলোকিত সকাল ডেস্ক

ভরের একক কিলোগ্রামকে এতদিন যে উপায়ে সংজ্ঞায়িত করা হত, সম্প্রতি তা বদলে দিয়েছেন বিজ্ঞানীরা। ২০ মে থেকে কিলোগ্রাম সংজ্ঞায়িত হচ্ছে প্ল্যাঙ্ক’স কনস্ট্যান্ট বা প্ল্যাঙ্কের ধ্রুবকের সাহায্যে। কিলোগ্রামের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে এবার বদলাচ্ছে সেকেন্ডের হিসাব।

কিলোগ্রামের মতো সেকেন্ডকে আরো অনেক বেশি নিখুঁত পরিমাপের জন্য বদলে ফেলার কথা ভাবছেন বিজ্ঞানীরা। তাদের গবেষণা সফল হলে সিজিয়াম ঘড়ির চেয়ে ১০০ গুণ বেশি নিখুঁতভাবে এক সেকেন্ডকে মাপা হবে।

বর্তমানে সিজিয়াম পরমাণু দিয়ে তৈরি ঘড়িতে সেকেন্ড মাপা হয়। সিজিয়াম পরমাণু নির্দিষ্ট কম্পাঙ্কের আলো শুষে নিয়ে নির্দিষ্ট সময় অন্তর সেই শক্তি তড়িৎ-চুম্বকীয় তরঙ্গ আকারে ছেড়ে দেয়। ঠিক যেমন আদর্শ অবস্থায় একটি পেন্ডুলাম নির্দিষ্ট সময় অন্তর বিশেষ একটি স্থানে পৌঁছায়।

সিজিয়ামের ঘড়িতে আলোর ৯১৯,২৬,৩১,৭৭০ বার স্পন্দন বা দোলনের কালকে এক সেকেন্ড ধরা হয়। কিন্তু পরবর্তীকালে তৈরি হওয়া ‘অপটিক্যাল অ্যাটমিক ক্লক’ অনেক বেশি নিখুঁত সময় দিচ্ছে।

ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেকনোলজি-র পদার্থবিদ অ্যান্ড্রু লাডলোরের মতে, অপটিক্যাল অ্যাটমিক ক্লকে অনেক বেশি কম্পাঙ্ক রয়েছে। ফলে ঘড়ির প্রতিটি টিক অনেক কাছাকাঠি। এই ঘড়িতে সিজিয়াম ঘড়ির চেয়ে ১০০ গুণ বেশি নিখুঁতভাবে এক সেকেন্ডকে মাপা যাচ্ছে।

সেকেন্ডকে আরো নিখুঁতভাবে মাপার ব্যবস্থা করতে আরো কিছু কাজ বাকি। জানা যায়, আন্তর্জাতিক স্বীকৃতির সব ধাপ পেরিয়ে বদলটা হয়তো ঘটবে ২০২০ সালের শেষ নাগাদ।

আস/এসআইসু

Facebook Comments