ফেবারিটের মতোই জিতল ইংল্যান্ড

আলোকিত সকাল ডেস্ক

‘পোমস’ মানে বুলি না গালি পরিষ্কার করে বলা মুশকিল। অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ড নাক শিটকে পোমস বলত ইংল্যান্ডের ক্রিকেট ও রাগবি দলকে। পরে দক্ষিণ আফ্রিকাও ওই নামে ডাকতে শুরু করে। ইংল্যান্ডও মেনে নেয়। স্নেহভাজন বিশেষণ বলেই মনে করে তারা। পরিচয় দিতে শুরু করে ওই নামেই। বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচে ওই পোমসরা ১০৪ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে প্রোটিয়াদের।

কেনিংটন ওভালে বৃহস্পতিবার টস জিতে বোলিং নেয় দক্ষিণ আফ্রিকা। প্রথম ওভারেই উইকেট তুলে নেয় তারা। তবে ঘুরে দাঁড়িয়ে ইংল্যান্ড ৮ উইকেট হারিয়ে তোলে ৩১২ রান। জবাবে ব্যাট করতে নেমে দক্ষিণ আফ্রিকা তুলতে পারে ২০৭ রান। অলআউট হয়ে যায় ৪০ ওভারের মধ্যে। এ জয়ে ওয়ানডের সেরা দল ইংল্যান্ড বুঝিয়ে দেল বিশ্বকাপের বড় ফেবারিট তারাই।

ইংল্যান্ডের হয়ে এ ম্যাচে দারুণ ব্যাটিং করেন বেন স্টোকস। তিনি দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৮৯ রান করেন। এছাড়া টপ অর্ডারের অন্য তিন ব্যাটসম্যান জেসন রয়, জো রুট এবং ইয়ন মরগান ফিফটি করেন। তিন জনই পঞ্চাশের ঘরে রান করে আউট হন। তারা সেট হয়ে আউট না হলে আরও বড় রান তুলতে পারত ইংল্যান্ড। দক্ষিণ আফ্রিকার স্পিনার ইমরান তাহির এবং পেসার লুঙ্গি এনগিডি এবং কাগিসু রাবাদারা নিয়মিত উইকেট তুলে নেন তাদের।

তবে ব্যাট হাতে প্রোটিয়ারা ভালো করতে পারেননি। ইংল্যান্ড বোলার ও ফিল্ডাররা এ ম্যাচে ‘খুনে’ মেজাজে ছিলেন। বল হাতে যেমন দুর্দান্ত বোলিং করেছেন। তেমনি ফিল্ডিংয়ে ছিলেন অসাধারণ। ইংলিশ অলরাউন্ডার বেন স্টোকস ধরেছেন দুর্দান্ত এক ক্যাচ। প্রিটোরিয়াসকে ফেলেছেন রান আউটের ফাঁদে।

বল হাতে প্রোটিয়াদের ধসিয়ে দেওয়ার কাজটা করেছেন জোফরা আর্চার এবং লিয়াম প্লাঙ্কেট। শুরুর পাঁচ ব্যাটসম্যানকে ফেরার এই দুই পেসার। আর্চার নেন তিন উইকেট। প্লাঙ্কেট তুলে নেন দুই উইকেট। পরে বেন স্টোকস দখল করেন দুই উইকেট। আদিল রশিদের থলেতে যায় এক উইকেট। দক্ষিণ আফ্রিকায় হয়ে কুইন্টন ডি কক করেন ৬৮ রান। ভ্যান ডার ডোসন ৫০ রান করে আউট হন। বোলিংয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার এনগিডি তিন উইকেটন নেন। ইমরান তাহির ও রাবাদা নেন দুটি করে উইকেট।

আস/এসআইসু

Facebook Comments