ফেনীর দাগণভূঞাঁ রাজাপুর স্কুল এন্ড কলেজ মাঠ ইট বালি দিয়ে দখল,ব্যাহত হচ্ছে খেলাধূলা

মোঃস্বপন মজুমদার

ফেনীর দাগণভূঞাঁ উপজেলার ২নংরাজাপুর ইউনিয়নের রাজাপুর স্কুল এন্ড কলেজ মাঠের অধিকাংশ জায়গায় ইট,বালু,গাছের খন্ড ও ভাঙ্গারি জিনিস পত্রের স্তুপ করে রাখা রয়েছে। এতে করে মাঠটিতে খেলাধুলা করতেন খেলোয়ারদের নানামুখী সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে। যুব সমাজকে মাদক মুক্ত করে গড় তুলতে খেলাধুলাই হচ্ছে প্রধান উপায় বলে মনে করেন অভিজ্ঞ মহল। কিন্তু মাঠে এই সমস্যার কারনে অনেকে খেলাধুলায় আগ্রহ হারাচ্ছে।

রাজাপুর স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষার্থীরা ও এলাকাবাসী জানান আমরা অনেক চেষ্টা করে যাচ্ছি যাতে করে যুব সমাজ আড্ডা না দিয়ে খেলাধুলায় মনোনিবেশ করে। কিন্তু খেলার মাঠ যদি প্রভাবশালীদের দখলে থাকে তাহলে কিভাবে আমরা খেলাধুলা করবো। আমরা উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করছি তারা যাতে আমাদের খেলার মাঠটি খেলার উপযোগী করে দেন।

সমাজিক অবক্ষয়ের বিষয়ে নিয়ে কথা বলে অনেকে।কিন্তু কিছু বিষয় নিয়ে সবাই কথা বলতে চায় না ভয় পায় আজ হয়তো তারা কিছু সত্য বলবে কিন্তুু কাল তাকে হতে হবে মাদক, চোরাচালান কারবারি বা গাইবি মামলার আসামি,তাই ভুক্ত ভুগিরা ভয়ে মুখ খোলেনা,কারণ এতে সমাজের নাম ধারি রাজনৈতিক নেতা সহ আরো অনেকে জড়িত যারা ক্ষমতার অপব্যাবহার করছে,যাদের হাতে জিম্মি হয়ে আছে স্কুল কমিটি ও,ভয়ে তারাও কোন কথা বলেন না এদের তান্ডব এ অতিষ্ঠ এলাকাবাসী।

সরকার প্রতি বছর প্রতিটি সরকারী স্কুল কলেজের জন্য খেলাধুলার উপকরন সহবারহ সহ আর্থিক অনুদান দিয়ে থাকলেও বিভিন্ন কৌশলে আত্মসাত হয়ে যায়। মাঠ সুরক্ষার দাবি নিয়ে অধ্যক্ষ,সভাপতি কিংবা কমিটির কেউ তো এগিয়ে আসছে না। ৩-৪ বছর ধরে এখানে কোন প্রকার খেলাধুলা হয় না। দীর্ঘদিন থেকেই সেখানে নির্মাণ সামগ্রী রাখা আছে,অথচ প্রতিষ্ঠান টি বেমালুম চুপ হয়ে আছে।

মাঠের ধুলো বালির উৎপাতে পাশে মাদ্রাসার একাডেমিক কার্যক্রম ও ছাত্রছাত্রীদের পড়া লেখার পরিবেশ মারাত্মক ভাবে বিপর্যস্ত হচ্ছে। রাজাপুর হাইস্কুল এন্ড কলেজের কতৃপক্ষের কেউ এটা নিয়ে কথা বলছে না। দেখেও না দেখার ভান করছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) স্থানীয় সংসদ সদস্যসহ সংশ্লিষ্টদের দ্রুত হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী ও শিক্ষার্থীরা।

আস/এসআইসু

Facebook Comments