প্রেমিকার বাড়িতে প্রেমিকের অনশন, অবশেষে ভালোবাসার জয়

আলোকিত সকাল ডেস্ক

প্রেমিকার বাড়ির সামনে ভালোবাসার দাবিতে প্রেমিক অনশনে বসেছেন। পাশে প্ল্যাকার্ড ‘আমার আট বছর ফিরিয়ে দাও’।

এ ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের জলপাইগুড়ি জেলার ধূপগুড়িতে।

প্রেমিক যুবককে আশপাশের লোকজন বোঝানোর চেষ্টা করছেন, কিন্তু সে তার সিদ্ধান্তে অনড়। প্রেমিকা সাড়া না দিলে অনশন তুলবেন না, স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিলেন তিনি।

গত রবিবার থেকে সোমবার পেরিয়ে যায়, এ সময় প্রেমিকের শরীর খারাপ হচ্ছে ক্রমে। অসুস্থ হয়ে পড়ায় চিকিৎসার প্রয়োজনও হয় তার। এমন পরিরিস্থিতির পর অবশেষে প্রেমিকার বাড়ির বরফ গলল। দু’পক্ষ রাজি হওয়ায় রাতেই মেয়েটিকে সিঁদুর পরিয়ে দেন যুবক। মন্দিরে মালাবদল হয়। রাতে ধূপগুড়ির মানুষ খুশি, কারণ ‘জয় হয়েছে ভালবাসার’।

ভারতীয় গণমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, প্রেমিকার বাড়ি শহরের কলেজপাড়ায়। তার সঙ্গে আলিপুরদুয়ারের এক যুবকের বিয়ে ঠিক হয়। জানতে পেরে রবিবার প্রেমিকার বাড়ির সামনে অনশনে বসেন স্থানীয় যুবক অনন্ত বর্মণ।

তার দাবি, মেয়েটির সঙ্গে তার আট বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক। সম্পর্ক ভেঙে হঠাৎ কাউকে বিয়ে করে চলে যাওয়াটা ঠিক নয়। অনন্ত আরও দাবি করেন, ‘আমার আট বছর ফিরিয়ে দাও।’ তার কথায়, যুবতীর বাড়ির লোকেরা সম্পর্ক মানতে নারাজ। মেয়ের অন্যত্র বিয়ে দিতে উদ্যোগী তারা।

এ ঘটনায় স্থানীয়েরাও মেয়ের বাড়ি লোকেদের প্রশ্ন করেন, সব জানা শুনেও কেন তারা লুকিয়ে অন্যত্র মেয়ের বিয়ে ঠিক করছেন?

মেয়ের বাড়ির লোকজনদের দাবি, বিয়েতে মেয়ের আপত্তি ছিল না। বিষয়টি নিয়ে মেয়ের বাড়ির লোকজন পুলিশেও অভিযোগ দায়ের করেন।

গত সোমবার আলিপুর দুয়ার থেকে পাত্রের বাড়ির লোক মেয়েটির বাড়িতে আসেন। প্রেমিক অনন্ত তাদেরকে বাঁধা দেন। এটা দেখে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসেন।

তারা প্রেমিক যুগলকে মিলিয়ে দিতে উদ্যোগী হন। রাতে অনন্তের বাড়িতে মেয়েটিকে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে সিঁদুর পরিয়ে তারা যান স্থানীয় কালী মন্দিরে। শাস্ত্র মেনে মন্দিরেই মালাবদল হয়।

ভালবাসার জয় হওয়ার পর প্রেমিক অনন্ত বলেন, ‘ওর সঙ্গে আমার সম্পর্ক অনেক দিনের। আমরা দুজনেই খুশি।’ সত্যিই এ ঘটনার পর যে কেউ বলবেন ‘ভালবাসার জয় হোক’। ভালোবাসা চির অমর।

আস/এসআইসু

Facebook Comments Box