প্রাণচাঞ্চল্য ফিরছে রাজধানীতে

আলোকিত সকাল ডেস্ক

ঈদের ছুটির পর সরকারি ও বিভিন্ন বেসরকারি অফিসে প্রথম অফিস আজ রোববার। তাছাড়া বেশিরভাগ স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়েও ক্লাস হচ্ছে আজ। ঈদের দিন ও তারপরের কয়েকদিন রাজধানী প্রায় ফাঁকা থাকলেও, রোববার থেকে ধীরে ধীরে প্রাণচাঞ্চল্য ফিরতে শুরু করেছে রাজধানী।

রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলোতে রোববার সকালের চিরচেনা যানজট না থাকলেও রাস্তায় যানবাহনের বেশ ভিড় দেখা যায়। অফিসগামী মানুষের চলাফেরাও চোখে পড়ে বেশ। তবে সরকারি ও বেসরকারি অফিসগুলো খুললেও রোববার অনেক বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান ও দোকানের শাটার বন্ধই থাকতে দেখা যায়। এসব বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের কর্মচারীরাই ঈদের আগের দিন ছুটি পেয়েছেন। তাই বাড়ি থেকে ফিরবেনও তারা দুই একদিন দেরিতে। রাজধানীতে গণপরিবহনের পাশাপাশি ব্যক্তিগত গাড়ি চলাচলও এদিন বেশ চোখে পড়ে।

এদিকে রোববার প্রথম অফিসকে কেন্দ্র করে গতকাল শনিবার ঢাকামুখী বাস, ট্রেন, লঞ্চে ভিড় ছিল বেশি। তবে ঢাকা পর্যন্ত নির্ঝঞ্ঝাটে পৌঁছালেও টার্মিনাল থেকে ঘরে পৌঁছাতে ভোগান্তিতে পড়েন অনেকেই। বেশির ভাগ মানুষের সঙ্গে পরিবারের সদস্য এবং ব্যাগ-লাগেজ থাকায় সিএনজিচালিত অটোরিকশাই ছিল তাঁদের ভরসা। কিন্তু অটোরিকশাচালকেরা মিটারের তোয়াক্কা না করে কয়েক গুণ বেশি ভাড়ায় বিভিন্ন গন্তব্যে যেতে যাত্রীদের বাধ্য করেন।

গতকাল সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনাল, কমলাপুর রেলস্টেশন ও বাস টার্মিনালগুলোতে ঢাকামুখী মানুষের ভিড় ছিল আগের দিনগুলোর তুলনায় বেশি। তবে রাজধানীর সড়কে ছিল না চিরচেনা যানজট। মহাসড়কে যানজট না থাকায় বাসগুলো সময়মতো পৌঁছায়। ট্রেনগুলো নির্ধারিত সময়ের আধা ঘণ্টা থেকে এক ঘণ্টা দেরিতে কমলাপুর পৌঁছায়।

টেকনিক্যাল মোড়ের বাস কাউন্টারে বগুড়া থেকে আসা এক যাত্রী বলেন, ‘সাড়ে চার ঘণ্টায় চলে এলাম। এত কম সময়ে আসা যাবে, ভাবতেও পারিনি। ছোট ছেলেমেয়ে নিয়ে ভোগান্তি ছাড়া আসতে পেরেছি, তাতেই খুশি।’

হানিফ পরিবহনের এক পরিবহন কর্মী জানান, ঈদের পর শুক্রবার রাতে ও শনিবার যাত্রীর চাপ সবচেয়ে বেশি ছিল। যানজট না হওয়ায় উত্তরবঙ্গ থেকে আসা বাসগুলো নির্ধারিত সময়েই ঢাকায় পৌঁছেছে।

তবে নদীপথে ফেরা লঞ্চযাত্রীরা সদরঘাট টার্মিনালে এসে দুর্ভোগে পড়েন। লঞ্চের বেশির ভাগ যাত্রী হকার, কুলিদের দৌরাত্ম্য এবং যানবাহন না পেয়ে চরম দুর্ভোগের শিকার হয়েছেন। যানবাহনের সংকট থাকায় বাড়তি ভাড়া দিয়ে নিজ নিজ গন্তব্যে ফিরতে হয়েছে। দক্ষিণাঞ্চল থেকে আসা বেশ কয়েকটি লঞ্চের যাত্রীরা লঞ্চে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগ করেছেন।

আস/এসআইসু

Facebook Comments Box