প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় আমাদের ঘাম দিয়ে জ্বর ছাড়ার উপক্রম

আলোকিত সকাল ডেস্ক

হোয়াইট হাউসে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সাথে প্রিয়া সাহার সাক্ষাৎকার মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্টের আমন্ত্রণেই হয়েছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের শীর্ষ নেতা কাজল দেবনাথ। তবে প্রিয়া সাহা যা বলেছে সেটা তার নিজস্ব বক্তব্য। আমি তাকে ডিপেন্ড করতে যাব না। তবে তিন মাস আগে তার বাড়িতে আগুন ও জমি দখলের বিষয়টা আপনারা গণমাধ্যমে প্রকাশ করেছেন এবং বেশ কয়েকটি টিভি চ্যানেলেও দেখানো হয়েছে। অথচ আজ কিন্তু বলা হচ্ছে সে তার নিজ বাড়িতে আগুন দিয়েছে। একটা মানুষ অন্যায় করলে তার ওপর হওয়া আগের অন্যায়কে ভুল প্রমাণিত করা কি কাম্য? তবে হিন্দু সম্পদায়ের সাথে দেশবাসীর মাঝে মুখোমুখি দাড় করিয়ে দিয়ে ঠিক করেনি প্রিয়া সাহা। তবে সৃষ্টিকর্তা ও প্রধানমন্ত্রীর কাছে কতজ্ঞ, প্রিয়া সাহার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা আমাদের ঘাম দিয়ে জ্বর ছাড়ার উপক্রম বলে জানান তিনি।

৩৭ মিলিয়ন সংখ্যালঘু গুম হওয়ার অভিযোগ তুলে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল ট্রাম্পের কাছে নালিশ দিয়েছেন বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টন ঐক্য পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রিয়া সাহা। প্রিয়া সাহার এমন অভিযোগের জবাবে ব্যারিস্টার সুমন রাষ্ট্রদ্রোহী মামলা করতে হাইকোর্টে আপিল করেন, হাইকোর্ট তা খারিজ করে দেয়। এ বিষয়ে অনুষ্ঠানের সঞ্চালক মিথিলা ফারজানা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালকে প্রশ্ন করেন। কেন প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধে মামলা নেয়নি আদালত?

এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, প্রিয়া সাহা যা বলেছেন তা তার সংগঠন হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের শীর্ষ নেতা রানা দাশগুপ্ত এই বক্তব্য প্রিয়ার নিজস্ব বলে মন্তব্য করেছে। আর আমরা তার বিষয়ে কোন ধরণের আগবাড়িয়ে সিদ্ধান্ত নিতে চাই না। কি কারণে, তিনি (প্রিয়া সাহা) এমন কথা বলেছেন, উদ্দেশ্য কি? তা সব বুঝে তবেই ব্যবস্থা নেয়া হবে। এমন কিছু করা যাবে না, যাতে করে সে তার সুবিধা পেয়ে বসে। তবে তার উদ্দেশ্য যে ভাল ছিল না, এটা তো স্পষ্ট। রাষ্ট্র না বুঝে কোন নাগরিকের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলার অনুমতি দিতে পারে না। আমরা তার কাছে সুনির্দিষ্ট কারণ জানতে চাইবো। তারপরই তার বিরদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। যেহেতু স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের অনুমতি ব্যতীত রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা নেয়া যায় না বলে সঞ্চালক এসময় মন্ত্রীকে স্মরণ করিয়ে দেন। তখন মন্ত্রী বলেন, আমরা চাইলেই অনেক কিছু করতে পারি না। রাষ্ট্রের নাগরিক সে। তার কাছে শুনেই ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এসময় আর এক সাংবাদিক প্রধানমন্ত্রী প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধে মামলা না নেয়ার নির্দেশনার বিষয়টি বলেন, তখন মন্ত্রী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যথার্থ বলেছেন, আত্মপক্ষ সমর্থন ব্যতীত প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধে মামলা না নেওয়ার সিদ্ধান্তই সঠিক। কারণ সে আমার দেশের নাগরিক।

তবে সংখ্যালঘু সম্পদায়ের নেতা কাজল দেব নাথ বলেন, বর্তমান সরকার সংখ্যালঘু সম্পদ্রায় বান্ধব। তবে প্রিয়া সাহার বিষয়টা এভাবে দেখলে হবে না। তবে তার ঢালাও ভাবে এমন কথা বলা যেমন উচিত হয়নি, তেমনি সত্য অস্বীকার করাও উচিত নয়। বিশেষ করে তিন মাস আগে তার বাড়িতে আগুন ও জমি দখলের ঘটনা ঘটেছে। আপনারাই তা প্রচার করেছেন। সে প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়েছে। কি হয়েছে না হয়েছে তা প্রশাসন বলতে পারবে। আমি প্রিয়া সাহার জন্য আত্মপক্ষ সমর্থন করছি না। তবে এ ঘটনা সত্য। প্রিয়া সাহার বাড়িতে আগুন এবং জমিও দখল হয়েছে। তবে সে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রীর দ্বারস্থ হতে পারতো? কিন্তু ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে গিয়ে নালিশ করে কি হবে? এই নালিশের মাধ্যমে পুরোদেশবাসীর সাথে হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষের মুখোমুখি অবস্থানে দাড় করিয়ে দিয়েছেন প্রিয়া সাহা। যা কাম্য নয়। আমরা কৃতজ্ঞ প্রধানমন্ত্রীর কাছে। তার দূরদর্শীতার জন্য। তিনি নির্দেশনা দিয়েছেন প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধে মামলা না নেয়ার। আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ করে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এতে করে আমাদের (হিন্দু সম্প্রদায়) ঘাম দিয়ে জ্বর ছাড়ছে।

আস/এসআইসু

Facebook Comments