নোয়াখালীতে ডেঙ্গু রোগে আক্রান্তদের দেখতে সরজমিনে হাসপাতালগুলো পরিদর্শন ও নির্দেশনা এবং পরীক্ষা-নিরীক্ষার ফি কমানো (৫০% কম মূল্যে)

সুজন পালঃ

নোয়াখালী জেলা প্রশাসক জনাব তন্ময় দাস মহোদয়ের নির্দেশে আজ দুপুর ১২.৩০ থেকে বিকেল ৩.৩০ পর্যন্ত জেলার বিভিন্ন হাসপাতাল পরিদর্শন করা হয়। নোয়াখালী জেলায় ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা এখন পর্যন্ত ১৭ জন যারা তিন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে ২১ তারিখ থেকে অদ্যাবদি ভর্তিকৃত রোগীর সংখ্যা ১০ জন। এদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে।

প্রাইম হাসপাতালে ৪জন রোগী ভর্তি রয়েছে। গুড হিল হাসপাতালে ভর্তিকৃত রোগীর সংখ্যা ৩ জন এবং এদের মধ্যে ২জনের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাদের ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে। আর এই মুহূর্তে বিভিন্ন হাসপাতালে ১৪ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি রয়েছে। পর্যবক্ষণে হাসপাতাল কতৃপক্ষকে যে সকল বিষয়ে নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে-
১. ডেঙ্গুরোগে আক্রান্তদের জন্য প্রতি হাসপাতালে আলাদা কর্ণার স্থাপন (Isolation)।

২. ডেঙ্গু রোগে আক্রান্তদের সার্বক্ষণিক মশারি টানিয়ে রাখার ব্যবস্থা (কারণ- ডেঙ্গু রোগী থেকে এডিস মশার মাধ্যমে অন্যান্যদের মাঝে এ রোগ ছড়ায়)

৩. ডেঙ্গু রোগে আক্রান্তদের সকল ধরণের পরীক্ষা-নিরীক্ষার ফি/দাম যথা সম্ভব কম রাখা। (অনুরোধ করা হয়েছে শতকরা ৫০ভাগ এ কমিয়ে আনা)।

৪. ডেঙ্গু রোগীদের কর্ণারকে সার্বক্ষণিক পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা।

৫. হাসপাতাল পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখা ও সমগ্র হাসপাতালে এরোসল স্প্রে করা।

৬. হাসপাতালে ডেঙ্গু আক্রান্ত কোন রোগী সনাক্ত হওয়া অথবা পাওয়া গেলে তার তথ্য সিভিল সার্জন কার্যালয়ে দ্রুত প্রেরণ ও নিশ্চিত করা।

৭. ঢাকা গামী বা ঢাকা থেকে আগত সকল যানবাহন ও বিশেষ করে এসি বাসগুলোতে এরোসল স্প্রে করা। (ইতোমধ্যে বাস মালিকদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।)

৮. সম্প্রতিক ঘটনা থেকে জানা যায় বেশির ভাগ রোগীই সম্প্রতিক সময়ে ঢাকায় যাতায়ত করেছেন এবং তিন জন রোগী যারা গত ২মাস ঢাকায় বা নোয়াখালীর বাহিরে যাতায়ত করেননি তারাও ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। এজন্য সকলকে সতর্ক ও সাবধানে থাকার জন্য পরামর্শ দেওয়া হল। রাতে ও দিনে মশারি ও কয়েল ব্যবহার করতে পারেন।

ডেঙ্গু আক্রান্ত সম্পর্কে আতংকিত না হয়ে সচেতন হোন ও অপকেও সচেতন করুন। জ্বর আক্রান্ত হলে যতদ্রুত সম্ভব চিকিৎসকের শ্মরণাপন্ন হোন।

পরিদর্শন করেন করেন- জেলা প্রশাসকের প্রতিনিধি সহকারী কমিশনার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মো: রোকনুজ্জামান খান (Ruknuzzaman Khan Rukon) ও এম. সাইফুল্লাহ এবং সিভিল সার্জন কার্যালয়ের প্রতিনিধি ডা. হোসেন মোঃ আরাফাত।

আস/এসআইসু

Facebook Comments