নেতা পেটানোর প্রতিশোধ, লিচু সাবাড় করল ছাত্রলীগ!

রাবি প্রতিনিধি:

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) লিচু পেড়ে খেতে গিয়ে মঙ্গলবার (০৭ মে) রাতে ইজারাদারের কর্মচারীদের হামলায় ছাত্রলীগের একজন নেতার দুই হাত ভেঙে যায়। আহত হয় আরও বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী। এ ঘটনার জেওর বৃহস্পতিবার (০৯ মে) বিকেল ৪টার দিকে ওই বাগানের অধিকাংশ গাছের লিচু পেড়ে নিয়েছে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

রাবির ইজারা দেয়া গাছ থেকে লিচু পেড়ে সাবাড় করছে সাধারণ শিক্ষার্থী পরিচয়ধারী ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা!

তবে রাবি ছাত্রলীগ সভাপতি গোলাম কিবরিয়ার দাবি- ‘সেদিনের ঘটনার পর থেকে হামলাকারীরা পলাতক। তারা বাগানে আসছেন না বলে জেনেছি। এই সুযোগে হয়তো সাধারণ শিক্ষার্থীরা লিচু পেড়ে খেয়েছে। ছাত্রলীগের কেউ সেখানে গেছে বলে আমার জানা নেই।’

আর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক মো. লুৎফর রহমান বলছেন, ‘বিকেলে (বৃহস্পতিবার) কোনো গাছ থেকে লিচু পাড়ার ঘটনা এখনও আমি শুনিনি। তাই এ নিয়ে কিছু বলতে পারবো না। খোঁজ-খবর নিয়ে দেখছি।’

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের রোকেয়া হলের উত্তর পাশের ‘গোদাগাড়ী’ বাগান থেকে ২০/২৫ শিক্ষার্থী লিচু পাড়তে শুরু করে। তারা গাছের লিচুসহ ডাল কেটে ফেলে।

খবর পেয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সংবাদকর্মীরা সেখানে যায়। ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, রাবি ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক ও শহীদ হবিবুর রহমান হলের শিক্ষার্থী মনির, একই হলের ছাত্রলীগ কর্মী এবং আইন ও ভূমি প্রশাসন বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী মিনহাজ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের ছাত্রলীগ কর্মী মমিনুলসহ বেশ কয়েকজনকে লিচু পাড়ছেন।

এগিয়ে গিয়ে তাদের সঙ্গে কথা বলতে গেলে ছাত্রলীগ নেতা মনির সাংবাদিকদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন। তার পরিচয় জানতে চাইলে মনির জানান, তিনি সম্প্রতি ফোকলোর বিভাগ থেকে মাস্টার্স শেষ করেছেন।

তিনি দাবি করেন, তারা সবাই সাধারণ শিক্ষার্থী। ক্যাম্পাসের গাছ থেকে লিচু পেড়ে খাচ্ছেন। ওই সময় উপস্থিত অন্যরাও নিজেদেরকে সাধারণ শিক্ষার্থী হিসেবে পরিচয় দেন।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্র জানায়, রাবির কৃষি প্রকল্পের কাছ থেকে চলতি বছর টেন্ডারের মাধ্যমে নগরীর ভদ্রা এলাকার আব্দুল্লাহ ইবনে মনোয়ার প্রায় এক লাখ ৫২ হাজার টাকায় ওই বাগানটি ইজারা নেন। তিনি বাগানটি পাহারা দেওয়ার জন্য প্রহরী নিযুক্ত করেন। ছাত্রলীগের সঙ্গে মারধরের ঘটনায় তাদের নামে মতিহার থানায় মামলা হয়। গ্রেফতার হওয়ার ভয়ে তারা বাগানে আসা বন্ধ করে দিয়েছেন।

বাগানের ইজারাদার আব্দুল্লাহ ইবনে মনোয়ারের সঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ওইদিন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের সঙ্গে বাগানে থাকা প্রহরীদের ঝামেলা হয়েছিল। এরপর থেকে আর ওদিকে যাইনি। তবে এভাবে বাগান সাবাড় করার ব্যাপারে আমি প্রশাসনের কাছে লিখিত অভিযোগ দেব এবং প্রয়োজনে আইনের আশ্রয় নেবো।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, ‘ওইদিন রাতে মুরাদ ও রুবেল নামের দুই প্রহরীকে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা গাছের সঙ্গে বেঁধে রেখে লিচু পাড়ছিলেন। খবর পেয়ে তারা বাগানে আসলে তাড়াহুড়ো করে পালাতে গিয়ে কানন ও মেহেদি গাছ থেকে পড়ে যায়। তারা তাদেরকে ধরে মেরেছিলেন।’

গত মঙ্গলবার (৭ মে) রাতে ওই বাগানে লিচু পাড়তে গেলে ছাত্রলীগের ৭ নেতাকর্মীকে মারধর করে বাগান পাহারায় থাকা ব্যক্তিরা। এতে ছাত্রলীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের কাননের দুই হাত ভেঙে যায় ও উপ-আন্তর্জাতিক সম্পাদক মেহেদী হাসানের পায়ে গুরুতর জখম হয়।

আস/এসআইসু

Dedicated server 

Dedicated Hosting

Dedicated Cheap cloud server

Facebook Comments