নবীগঞ্জে এলাকাবাসী কর্তৃক স্বেচ্ছায় সড়ক মেরামত; পাকা করনের দাবী

মোঃ ফাহাদ আহমদ, নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ

সংস্কারের অভাবে নবীগঞ্জ উপজেলার আউশকান্দি ইউনিয়নের পারকুল সামিট বিবিয়ানা পাওয়ার প্লান্ট এলাকাধীন বনগাঁও সড়কের অনেক দিন থেকে বেহাল দশা। নবীগঞ্জ উপজেলার আউশকান্দি ইউনিয়নের বনগাঁও, ইসলামপুর (আজলপুর), পাহাড়পুরসহ প্রায় ৫ টি গ্রামের কয়েক হাজার মানুষে যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম বনগাঁও ইট সলিং সড়ক। বনগাঁও সড়ক পেরিয়ে প্রায় ১ কি.মি পর এশিয়ার বৃহত্তম বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র পারকুল সামিট বিবিয়ানা পাওয়ার প্লান্ট অবিস্থিত। প্রতিবছর স্থানীয় সরকারের মাধ্যমে ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামের সড়কের সরকারী বেসরকারী খাতে সংস্কার কাজ হলেও বনগাঁও সড়কটি গত সংসদ নির্বাচনের পরে আর কোনো সংস্কার কাজ হয়নি। এমতাবস্থায় রাস্তার বেহাল দশার ফলে বিপাকে পড়তে হয় এলাকার কয়েক হাজার মানষের। সড়ক দিয়ে যানবাহন চলাচল প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়ে।

এর মধ্যে বনগাঁও পূর্বপাড়া নতুন জামে মসজিদ থেকে পারকুল পাওয়ার প্লান্ট পর্যন্ত ইট সলিং ভেঙ্গে বড় আকারে গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। রাস্তার ইট সলিং নষ্ট হয়ে যায়। এলাকার বেশির ভাগ ছাত্র/ছাত্রী স্কুল, কলেজে যেতে রাস্তায় অনেক ভোগান্তিতে পড়তে হয়। তাদের যাতায়াতে অনেক কষ্ট হয়। বয়স্ক এবং রোগীদের আনা নেয়া কঠিন হয়ে পড়ে। যেহেতু অত্র এলাকার মানুষ চিকিৎসা সেবা নেবার জন্য নবীগঞ্জ উপজেলা হাসপাতাল বা মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালের উপর ভর্তি নির্ভর করতে হয়। সেহেতু এই সড়কটি এলাকার মানুষের চিকিৎসা সেবা গ্রহণের ও প্রতিবন্ধকতা হিসাবে কাজ করছে। প্রসূতিদের জন্য ইট সলিং সড়ক হচ্ছে মরণ ফাঁদ। সড়কে কোনো অটোরিক্সা চালক রিক্সা চালাতে আসেন না রাস্তার বেহাল দশার জন্য। এই সড়কের একাধিক সিএনজি চালক জানান, আমাদের এই সড়কে গাড়ী চালাতে অনেক সমস্যা হচ্ছে। ভাঙ্গায় পড়ে গাড়ীর ইঞ্জিন ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে।

স্থানীয়রা জানান, সড়কটি পাকা করণ পরের কথা সংস্কার না হওয়াতে আমাদের চলাচলে অনেক ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।এদিকে পাওয়ার প্লান্ট কর্তৃক এলাকার আর্তসামাজিক দিক দিয়ে উন্নয়নের অনেক প্রতিশ্রুতি দেওয়া হলেও তা বাস্তবায়ন হয়নি। পাওয়ার প্লান্টের রাস্তা খুবই খারাপ রূপ ধারণ করছে। সোমবার (৩০ জুলাই) বনগাঁও তারুণ্যের আলো সমাজকল্যাণ সংস্থার একাত্বতা পোঁষনের মাধ্যমে গ্রামের সাধারণ মানুষের সহায়তায় স্বেচ্ছায় রাস্তাটির ইট সলিং বড় বড় গর্ত মেরামতের কাজ সম্পন্ন হয়। তবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে এলাকাবাসীর আকুল আবেদন রাস্তাটি দ্রুত পাকাকরণ করে কষ্ট লাঘব করা হউক। বেশ কিছু স্কুলগামী ছাত্র/ছাত্রীদের সাথে কথা হলে তারা রাস্তাটি পাকা করণের দাবী জানান।

বনগাঁও তারুণ্যের আলো সমাজকল্যাণ সংস্থার কর্মী জুয়েল ও তারেক জানান, সড়কটির অবস্থা খুবই খারাপ অনেক দিন যাবত কোনো প্রকার সংস্কার হয় নাই। এই অবস্থা দেখে আমার সংস্থার কর্মী নিজেরা গ্রামের সাধারণ মানুষের সহায়তায় স্বেচ্ছায় ইট সলিং মেরামত কাজ করছি। তবে রাস্তাটি দ্রুত পাকা করণ করে এলাকাবাসীর দূর্দশা লাঘব করবে এটাই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে আহ্বান।

স্থানীয় সাবেক ইউপি সদস্য ও বর্তমান উপজেলা আওয়ামীলীগের কার্যকরী কমিটির সদস্য সুজন মিয়ার সাথে যোগাযোগ হলে তিনি বলেন সরকারী ভাবে রাস্তা পাকা করন করার কোন তথ্য আমার কাছে জানা নেই।

এব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যানের মুহিবুর রহমান হারুনের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, রাস্তাটি পাকাকরনের জন্য এলজিইডির নিকট প্রস্তাবি রয়েছে, তবে প্রকল্প কাজের সঠিক সময় জানা নেই।

দ্রুত পাকা করণ করে এলাকাবাসীর দূর্ভোগ লাগব করা হবে এটাই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট এলাকাবাসীর দাবী।

Facebook Comments