নতুন সাংসদদের দেখেও শান্তি, রামুর এ কেমন মন্তব্য

আলোকিত সকাল ডেস্ক

কলকাতার প্রতিষ্ঠিত চলচ্চিত্রাভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী ও নুসরত জাহান। সদ্য সমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের হয়ে ভারী ভোটে জয় পেয়েছেন দুজন। গত সোমবার সাংসদ হিসেবে ভারতের সংসদে ছিল তাদের প্রথম পরিচিতি পর্ব। কিন্তু সেখানে গিয়েই সমালোচিত হতে হয়েছে দুজনকে।

ওয়েস্টার্ন পোশাক পরে সংসদের সামনে ছবি তুলে সামাজিক মাধ্যমে পোস্ট করায় সমালোচিত হতে হয় দুজনকে। সমালোচনার দলে যোগ হলেন বলিউডের পরিচালক রামগোপাল ভার্মাও।

মিমি ও নুসরাতের একটি পুরোনো টিকটক ভিডিও টুইটারে পোস্ট করে রাম লিখেছেন- ওয়াও, বাংলার নতুন সাংসদ মিমি চক্রবর্তী ও নুসরাত জাহান। দেশ সত্যিই এগোচ্ছে। নতুন এই সাংসদদের চোখে দেখেও শান্তি।

রামুর এমন টুইটের পর বিভিন্ন জন সেখানে মন্তব্য করেন। কেউ লিখেছেন, ‘ওখানে স্টাইল করতে গিয়েছেন, না ফটো তুলতে? কেউ আবার লিখেছেন, ‘পার্লামেন্টে টিকটক’। দয়া করে নাটক করে বাংলা ও সংসদকে হাসির খোরাক বানাবেন না।’

অবশ্য ‘নতুন এই সাংসদদের চোখে দেখেও শান্তি’ কথাটি নিয়েও সমালোচনা করেছেন অনেক নেটিজেন। ফারাবি মিত্তাল নামে একজন লিখেছেন, দুজন যদি শাড়ি পরে স্তনের অংশ কিংবা নাভি দেখাতেন তাহলেও তো আরও বাজে মন্তব্য করতেন আপনি রামু। বয়স হয়েছে বুদ্ধি বাড়েনি।

নভ্য জালালি নামে একজন লিখেছেন, আপনার ঘরের কেউ এভাবে গেলে তাদেরও বলতেন?

ভারতীয় নারী সংসদরা মূলত সংসদে প্রবেশ করেন শাড়ি পরে। বাঁধা-ধরা না হলেও এটিই নিয়মে পরিনত হয়েছিল লোকসভা সংসদের। কিন্তু মিমি ও নুসরাত সেখানে ওয়েস্টার্ন পোশাক পরে অংশ গ্রহণ করেন। সোমবার দুজনই সামাজিক মাধ্যমে সংসদের সামনে তোলা কিছু ছবি শেয়ার করেন।

নিজের ছবি শেয়ার করে নুসরাত লেখেন, ‘নতুন শুরু। আমি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং বসিরহাট লোকসভা কেন্দ্রের সব মানুষকে আমার ওপর বিশ্বাস রাখার জন্য ধন্যবাদ জানাতে চাই।’

অন্য দিকে মিমি নিজের ছবির ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘স্বপ্নের কথা মনে রাখো এবং তার জন্য লড়াই করো।’

তাদের ছবিগুলো দেখেই ক্ষেপে যান নেটিজেনরা। তাদের দুজনের টুইটারে বিভিন্ন ধরণের মন্তব্য করেন ব্যবহারকারীরা।

আস/এসআইসু

Facebook Comments