দেশ এখন খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ : তথ্যমন্ত্রী

মাইকেল দাশ, রাংগুনিয়া প্রতিনিধি

আমাদের সরকার ,শেখ হাসিনার নেতৃত্বধীন সরকার দেশের দারিদ্রমোচনে কাজ করে যাচ্ছে। সরকার গঠন করার আগে ২০০৮ সালে ৪১ শতাংশ দারিদ্র ছিল । বর্তমানে তা ২০ শতাংশে কমিয়ে আনা হয়েছে। আগমী নির্বাচনের আগে তা ১০শতাংশে চলে আসবে।সরকার দেশকে ভিক্ষুকমুক্ত করবে ঘোষণা দিয়েছিল । এখন দেশের কয়েকটি উপজেলা ভিক্ষুকমুক্ত হয়েছে। বাংলাদেশে প্রকৃতপক্ষে কেউ বাধ্য হয়ে ভিক্ষা করেনা ।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ভিক্ষাবৃত্তি আছে; যাদের সন্তান সন্তানাধি খবরা খবর রাখছেনা। সেক্ষেত্রেও কেউ কিন্তু দুপুর বেলা , সন্ধ্যা বেলায় মা আমাকে বাসি ভাত দেন তা বাংলাদেশে শুনা যায়না। সরকার দেশকে ক্ষুধা/দারিদ্রমুক্ত দেশ বির্নিমানের ঘোষণা দিয়েছিলেন ,আমরা ইতিমধ্যে দেশকে ক্ষুধা মুক্ত করতে পেরেছি। দারিদ্রতা আছে আমাদের কিন্তু খাদ্যে আমরা পরিপূর্ণ। দেশের মানুষকে খাইয়ে আরও উদ্ধৃত থাকছে, বাংলাদেশ এখন খাদ্য রপ্তানি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।আমাদের সরকার এবং আমরা দাবি করতে পারি বাংলাদেশ এখন খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ।শনিবার (২০ জুলাই)দুপুরে রাংগুনিয়া উপজেলা পরিষদ অডিটরিয়ামে সংসদ সদস্যের ঐচ্ছিক তহবিল হতে দুঃস্থ ২৬১জন ব্যক্তির মাঝে দশ লক্ষ টাকার আর্থিক অনুদান প্রদান এবং এডিপির অর্থায়নে রাংগুনিয়া উপজেলা পরিষদ কর্তৃক বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টর ও ক্রিয়া সামগ্রি বিতরণ অনুষ্ঠান ২০১৯ প্রধান অথিতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

রাংগুনিয়ায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ রাস্তাঘাট প্রসঙ্গে তথ্যমন্ত্রী বলেন ; গতবারের বন্যায় যেমন আলাদা প্রকল্পের মাধ্যমে রাস্তাঘাট ও ক্ষতিগ্রস্থদের জন্য বরাদ্ধ দেওয়া হয়েছে। ঠিক তেমনি যেসব রাস্তাঘাট ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে পুনঃনির্মানের জন্য সংশ্লিস্ট দপ্তরের মাধ্যমে নিরুপনের প্রকল্প বরাদ্ধ দেওয়া হবে। ক্ষতিগ্রস্থদের জন্য ৮০ টন জিআরের চাল বরাদ্ধ দিয়ে বিতরণ করা হয়েছে।শিলক খালের ভেঙে যাওয়া বাঁধ মেরামতের জন্য পদক্ষেপ নেওয়া হবে ।উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা মোঃ মাসুদুর রহমানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান খলিলুর রহমান চৌধুরী, উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) পূর্বিতা চাকমা , রাংগুনিয়া থানার ওসি (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ ,ভাইস চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মনোয়ারা বেগম সহ উপজেলা কর্মকর্তা ও স্থানীয় নেতৃবৃন্ধ উপস্থিত ছিলেন।

Facebook Comments