ঢাকার নবাবগঞ্জে ২ খুন

আলোকিত সকাল ডেস্ক

ঢাকার নবাবগঞ্জের বান্দুরায় পীরের বাড়ি থেকে ফেরার পথে অস্ত্রধারীরা কুপিয়ে হত্যা করেছে ২ অনুসারীকে। নিহতরা হলেন- উপজেলার গালিমপুর ইউনিয়নের নোয়াদ্দা এলাকার বাসিন্দা কদম আলীর ছেলে কৃষক আবুল কালাম (৫৫) এবং একই এলাকার বাসিন্দা ফৌজদার খানের ছেলে ব্যবসায়ী মো. জাহিদ (৪৪)।

বৃহস্পতিবার (২৪ মে) দিবাগত রাত সাড়ে ১১ টার দিকে ইউনিয়নের মহব্বতপুর তালতলা এলাকায় এ জোড়া খুনের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় এলাকার মানুষের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে। গত এপ্রিল ও মে মাসে এ জোড়া খুন নিয়ে নবাবগঞ্জ থানা এলাকায় মোট ৬টি হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।

নিহতদের স্বজনরা জানায়, বৃহস্পতিবার ইফতারের পর কালাম ও জাহিদ মোটরসাইকেলে করে দোহার উপজেলার বাস্তা এলাকায় পীরের বাড়ি যাওয়ার উদ্দেশ্যে রওনা হন। ফেরার পথে মহব্বতপুর তালতলা সংলগ্ন এলাকায় হঠাৎ তিন দুষ্কৃতকারী পথে কলাগাছ ফেলে তাদের মোটরসাইকেল থামায়। তারা কালাম ও জাহিদকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাথাড়ি আঘাত করতে থাকে। এ সময় কালামের গলায় আঘাত লাগলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু ঘটে। এসময় মাথায় হেলমেট পরে থাকায় জাহিদের শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাত লাগে। সংগাহীন অবস্থায় উদ্ধার করে নবাবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জাহিদকে ঢাকায় পাঠানোর পরামর্শ দেন। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জাহিদকে মৃত ঘোষণা করেন। তাদের মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে রয়েছে।

এদিকে জোড়া হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় এলাকাবাসীর মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে। তারা এ হত্যাকারীদের গ্রেফতার ফাঁসি দাবি করেছে। নিহত কালামের স্ত্রী যমুনা বেগম ও জাহিদের স্ত্রী লিজা আক্তারসহ কয়েকজনকে নবাবগঞ্জ থানার ওসি জিজ্ঞাসাবাদ করছেন।

এদিকে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে নবাবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোস্তফা কামাল বলেন, বিষয়টি আমরা দেখছি। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। অপরাধী যেই হোক পুলিশ তাদের খুঁজে বের করবে।

আস/এসআইসু

Facebook Comments