টাঙ্গাইল গোপালপরে পুলিশের অভিযানে একজনের মৃত্যুর অভিযোগ, এলাকাবাসীর বি‌ক্ষোভ

গোপালপুর(টাঙ্গাইল)প্রতিনিধি

টাঙ্গাইলের গোপালপুরে জুয়া খেলার আসরে পুলিশের অভিযানে একজ‌নের মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। পুলিশের নির্যাতনে তার মৃত্যু হয়েছে, এমন দাবি করে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন এলাকাবাসী।

শুক্রবার (২৪ মে) বিকেলে ঝাওয়াইল টেকটিক্যাল কলেজ মাঠে এ ঘটনা ঘটে। জুয়ার আসর থেকে চারজনকে আটক করেছে পুলিশ।

নিহতের নাম আব্দুল হাকিম (৫০)। তিনি ঝাওয়াইল গ্রামের মৃত আবুল কাশেমের ছেলে। তিনি পেশায় মাংস ব্যবসায়ী ছিলেন।

ঘটনার পর রাতে গোপালপুর থানা ঘেরাও ক‌রে এলাকাবাসী। পু‌লি‌শের শা‌স্তি চে‌য়ে মধুপুর-‌গোপালপুর সড়ক অব‌রোধও ক‌রে তারা।

গোপালপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাসান আল মামুন জানান, ঝাওয়াইল ইউনিয়নের ঝাওয়াইল টেকটিক্যাল কলেজ মাঠে কিছু লোক টাকার বিনিময়ে তাস খেলছিল, এমন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ সেখানে অভিযান চালায়। এসময় সেখান থেকে চারজনকে আটক করা হয়। দু’জন দৌঁড়ে পালায়। আটককৃতদের নিয়ে পুলিশ থানায় আসে। পরে খবর পাওয়া যায় যে, দৌঁড়ে পালানো একজন মারা গেছেন।

অভিযানের নেতৃত্ব দেওয়া গোপালপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবু তাহের জানান, সেখান থেকে সুরুজ্জামান, রিপন রায়, হারাধন চন্দ্র বিশ্বাস ও গৌরাংগ রায়কে আটক করা হয়। তারা অভিযান শেষে থানায় ফিরে আসার পর আব্দুল হাকিম নামক একজনের মৃত্যু হয়।

তবে এলাকাবাসীর অভিযোগ, পুলিশ একটি মাইক্রোবাস নিয়ে সাদা পোশাকে সেখানে গিয়ে তাদের সবাইকে ধরে ফেলে। পরে প্রত্যেককে চড়-থাপ্পর মারে। এতে আব্দুল হাকিম অসুস্থ হয়ে ঢলে পড়ে। পরে পুলিশ তাকে ফেলে চারজনকে নিয়ে চলে যায়।

ঝাওয়াইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে তিনি ঘটনাস্থলে গিয়ে আব্দুল হাকিমকে মাঠে পড়ে থাকতে দেখেন। পরে আরো কয়েকজনের সহায়তায় তিনি (চেয়ারম্যান) হাকিমকে গোপালপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেন। সেখানকার চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

আব্দুল হাকিমের মৃত্যুর খবর এলাকায় পৌঁছার পর মানুষ বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। ইফতারের পর কয়েকশ মানুষ গোপালপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভিড় করে। তারা বিক্ষোভ প্রদর্শন করে।

আস/এসআইসু

Facebook Comments