কিডনি রোগে আক্রান্ত বীর মুক্তিযোদ্ধাকে দেখতে গেলেন ধামাইরহাট ব্যবসায়ী কল্যাণ সমবায় সমিতি

মাই‌কেল দাশ,রাংগু‌নিয়া প্র‌তি‌নি‌ধি:বীর মুক্তিযোদ্ধা ও লালানগর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক কাজী ইউনুচকে দেখতে আসেন ধামাইরহাট ব্যবসায়ী কল্যান সমিতির সাধারণ সম্পাদক ফজলুল করিম সেলিম,১৪নং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জামাল উদ্দিন,১৫নং লালানগর ইউপি সদস্য কাজী মঈন উদ্দিন,ধামাইরহাট ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সদস্য ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আলমগীর হোসেন,দক্ষিণ রাজানগর ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সভাপতি রেজাউল করিম, ডা: দীপক শীল সহ প্রমুখ।

কাজী ইউনুচ গত এক বছর যাবত কিডনি রোগে ভুগছিলেন।বর্তমানে তার দু’টা কিডনিই বিকল হয়ে গেছে। চিকিৎসার অভাবে বিছানায় মৃত্যুর প্রহর গুণছেন। ইতিমধ্যে ভারতসহ বিভিন্ন যায়গায় চিকিৎসা সেবা নিয়ে ৮ লাখ টাকার মতো খরচ করে নি:স্ব হয়ে গেছেন। বর্তমানে নগরীর সেভরন হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা নিচ্ছেন।প্রতি সপ্তাহে ঔষধ খরচ বাবদ ৮ হাজার টাকা দরকার হয়। বিকল দু’টা কিডনি প্রতিস্থাপন করে পুরোপুরি সুস্থ হওয়া পর্যন্ত ১৫ লাখ টাকার প্রয়োজন। কিন্তু তার পরিবারের পক্ষে ব্যয়বহুল এই চিকিৎসা খরচ বহন করা সম্ভব হচ্ছে না।

কর্মজীবনে তিনি দীর্ঘদিন যাবত দন্তচিকিৎসা পেশায় নিয়োজিত ছিলেন।কিন্তু চিকিৎসা ব্যয় বহন করতে গিয়ে বর্তমানে ভিটে মাটির ছোট্ট জায়গাটা ছাড়া কিছুই অবশিষ্ট নেই।তার তিন ছেলে দুই মেয়ে।বড় ছেলে বিয়ে করে আলাদা থাকে। ছোট দু’ছেলে এখনও বেকার অবস্হায় রয়েছে। তিনি সরকার এবং মাননীয় তথ্যমন্ত্রী ড. হাসান মাহমুদের কাছে আর্থিক সাহায্য কামনা করছেন।

উল্লেখ্য, তিনি ১৯৬৯ সালে ছাত্র থাকা অবস্থায় রাজনীতির সাথে যুক্ত ছিলেন।১৯৭১ সালের মুক্তিযোদ্ধে ফটিকছড়ির রোশানগিরিতে কমান্ডার আবু হাশেমের নেতৃত্বে পাকিস্তানি বাহিনীর সাথে সম্মুখ যুদ্ধে অংশ নিয়েছিলেন। তৎকালীন সময়ে তিনি ভারত হতে যুদ্ধের প্রশিক্ষণ নিয়েছিলেন।

কিন্তু বর্তমানে অর্থের অভাবে মহান এই বীর মুক্তিযোদ্ধার চিকিৎসা প্রায় বন্ধের উপক্রম হয়েছে।

Facebook Comments