করোনা ঝুঁকি নিয়ে বাড়ি ফিরছে মানুষ

35

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে বিপর্যস্ত সারা পৃথিবী। এখন পর্যন্ত কোনো ওষুধ আবিস্কার না হলেও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে আপাতত জনসমাগম এড়িয়ে চলাই এ রোগ প্রতিরোধের একমাত্র উপায়। তবে এর উল্টো চিত্র দেখা যাচ্ছে দেশে। ঈদের ছুটির মতো গাদাগাদি করে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বাড়ি ফিরছে মানুষ। রেলস্টেশন, বাসস্ট্যান্ড ও লঞ্চঘাটে উপচে পড়া ভিড়।

মঙ্গলবার সরেজমিন রাজধানীর কমলাপুর রেলস্টেশন, বাস টার্মিনাল ও সদর ঘাটে এমন চিত্র দেখা যায়। বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস আতঙ্ক এখন সবার মনে। এই আতঙ্কেই ঢাকা শহর ফাঁকা করে মানুষ ছুটছে নিজ নিজ গ্রামের বাড়ি।

সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনালে কয়েক হাজার যাত্রী আটকা পড়েছে। সদর ঘাটে অপেক্ষমান আব্দুল সাত্তার বলেন, আমরা কেরানীগঞ্জ থেকে বরিশাল যাবো। ২৫ তারিখের পর থেকে লঞ্চ বন্ধ করে দেয়ার কথা থাকলেও তার আগেই বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। ফলে বিপাকে পড়েছেন তারা। হঠাৎ করেই লঞ্চ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় পরিবার নিয়ে বিপাকে পড়েছেন সাগর ও সোহেল নামের দুই ভাই। বাধ্য হয়ে নৌকা নিয়ে রওনা দিতে দেখা গেছে তাদের।

আব্দুর রাজ্জাক পাঁচ, ছয় ও এক বছরের তিন মেয়ে, স্ত্রী ও ছোট ভাইকে নিয়ে সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনালে বসে আছেন। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নৌকাতে যাবেন বলে জানান তিনি।

করোনাভাইরাসের ঝুঁকি নিয়ে ট্রেনে করে বাড়ি ফিরছে মানুষ

করোনাভাইরাসের ঝুঁকি নিয়ে ট্রেনে করে বাড়ি ফিরছে মানুষ

রোহান ও সোহান দুই ভাই  ইসলামপুর কাপড়ের দোকানে কাজ করেন। বসে আছেন লঞ্চের অপেক্ষায়। নৌকায় যেতে ভয় পাচ্ছে বলে লঞ্চের অপেক্ষায় আছেন।

বিমানবন্দর রেলস্টেশনে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ট্রেনে উঠছে মানুষ। গাদাগাদি করে ট্রেনের ভেতরে দাঁড়িয়ে যাচ্ছেন অনেকে। এছাড়া ছাদেও উঠছেন অনেক যাত্রী।  দরজা দিয়ে উঠতে না পেরে উঠছেন জানালা দিয়ে।

এদিকে রাজধানীর গাবতলী ও সায়েদাবাদ বাসস্টান্ডে দেখা গেছে একই চিত্র। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে বৃহস্পতিবার থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সব গণপরিবহন বন্ধ ঘোষণা করায় যাত্রীরা মঙ্গলবার ভিড় করেন বাসস্টান্ডে।

বিশেষজ্ঞদের মতে, জনসমাগম থেকে করোনাভাইরাস সংক্রমণ ব্যাপক হারে ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে। বেশিরভাগ মানুষের মাঝে করোনাভাইরাস নিয়ে সচেতনতার অভাব আছে।

তথ্য মতে, করোনা প্রতিরোধের অংশ হিসেবে সরকার মঙ্গলবার থেকে সারাদেশে সেনাবাহিনী মাঠে নামিয়েছে। জনসমাগম এড়াতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানও বন্ধ রাখা হয়েছে। মূলত জনসমাগম এড়াতেই টানা ১০ দিনের ছুটি ঘোষণা করা হলেও মানুষ উল্টো ছুটি কাটাতে দলে দলে বাড়ি ফিরছেন।

Facebook Comments