কমলনগরে ইউপি সদস্যের নেতৃত্বে বিধবা নারীকে নির্যাতন

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি : লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে শেফালী বেগম(৫০) নামের এক বিধবা নারীকে স্থানীয় ইউপি সদস্য আবুর নেতৃত্বে শারীরিকভাবে নির্যাতনে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত (৩ জুলাই) সকালে উপজেলার চর মার্টিন ইউনিয়নের ৭ নম্বার ওর্য়াডের নজীর আহম্মদের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।
নির্যাতিত শেফালী বেগম জানান, ঘটনার দিন সকালে ইউপি সদস্য আবু তাকে ঘর থেকে ডেকে নিয়ে তার ভাই আনা মিয়ার ঘরে আটকে রেখে তার ভাই -ভাতিজা জাবেদ, মনির ও তারা দুই ভাইসহ দেশীয় অস্ত্র লাঠি দিয়ে মারধর করে। এবং মারধরের একপর্যায়ে দা, বটি দিয়ে হত্যার চেষ্টা করে। প্রায় দুই ঘন্টার আটকের পর স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ভর্তি করেন।
নির্যাতিত নারীর ছেলে মো.ইউছুফ জানান, পূর্ব শত্রুতার জেরে তার মাকে ঘর থেকে আবু মেম্বার ডেকে নেয়। তার ভাই আনা মিয়া ভাতিজা জাবেদ, মনির তাদের ঘরের মধ্যে আটকে রেখে শারিরীক নির্যাতন করেন। এবং দেশিয় অস্ত্র দিয়ে হত্যার উদ্দর্শ্যে আটকে রাখে। পরে স্থানীয়রা উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন।
স্থানীয়রা জানান, চর মার্টিন ইউনিয়নের ৭ নম্বার ওয়ার্ডে আবু মেম্বার দীর্ঘদিন যাবত তার বাহিনী, ভাই, ভাতিজাদের দিয়ে এলাকায় বিভিন্ন সন্ত্রাসী কায়দায় সাধারণ মানুষকে নির্যাতন করেন। প্রতিনিয়ত এলাকার স্থানীয় সাধারণ মানুষকে জিম্মি করে চাঁদা, লুটপাট, রাহাজানী করছে।
এছাড়াও , সাধারণ মানুষকে ভয় দেখিয়ে জিম্মি করে মোটা অংকের টাকা দাবি করার অভিযোগ পাওয়া যায়। চাঁদা বা তার কথা মত না কাজ করলে হামলা-মামলার শিকারও হতে হয়।
তিনি মেম্বার হওয়ার আগ থেকেই বেপরোয়া জীবন যাপন করেন। মেম্বার হওয়ার পর থেকে অতি মাত্রায় সাধারন মানুষকে বিভিন্ন অজুহাতে নির্যাতন করতে শুরু করেন। তার কথার বাহিরে কেউ কোন ধরণের প্রতিবাদ করতে পারে না। যে করবে তাকে তার পরিবারকে হামলা- মামলা ও নির্যাতনের শিকার হতে হয়। এই ব্যাপারে ভুক্তভোগী পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা করার  প্রস্তুতি চলছে জানান ।

 

Facebook Comments Box